Breaking News
Home / VIRAL / উড়িষ্যার বন থেকে বেরিয়ে এলো দুই মাথাওয়ালা বিরল প্রজাতির সাপ, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

উড়িষ্যার বন থেকে বেরিয়ে এলো দুই মাথাওয়ালা বিরল প্রজাতির সাপ, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সৃষ্টির আদিকাল থেকে শুরু করে মানুষ হচ্ছে সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ জীব। মানুষ তার মস্তিষ্ক খাটিয়ে এগিয়ে চলেছে একটার পর একটা বাধা এবং উঠে চলেছে ক্রমাগত উন্নতির শিখরে উন্নতির শিখরে একপা একপা করে উঠতে উঠতে সে মানুষ ছাড়া অন্যান্য জীবজন্তুকে তেমন রেয়াদ করেনি আর ফলাফলস্বরূপ অন্যান্য জীবজন্তুরা বসতির এবং খাদ্য সংকটে ভুগছে।

বনাঞ্চল কেটে সাফ করে তৈরি হচ্ছে কংক্রিটের জঙ্গল এতে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। তাছাড়া পরিবেশের কোলে যে সমস্ত বন্য জীবজন্তু থাকার চেষ্টা তাদের জীবন আজ সংকটে। বসতি হারা হয়ে তারা ঢুকে পড়ছে কাছাকাছির গ্রামাঞ্চলে। অনিচ্ছাতেই তারা ক্ষতি করে দিচ্ছে মানুষের। কখনো মানুষরা তাদের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, কখনো আবার মানুষ ভয় পেয়ে তাদেরকে মেরে ফেলছে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে উড়িষ্যার কেওনঝড় জেলার দেহেনকিকোটে বনাঞ্চল অঞ্চলে সম্প্রতি একটি দুটো মাথা বিশিষ্ট বিরল সাপের দেখা মিলেছে। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় দেওয়ার সাথে সাথেই এটি ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়েছে।

আর হবে নাই বা কেন এমন অদ্ভুত একটি সাপ খুঁজে পাওয়া সত্যিই বিরল। কাউকে কামড়ে তার কোন ক্ষতি করেছে কি-না এমন খবর যদিও জানা যায়নি, সাপটি বিষধর কিনা এ সম্পর্কে খুব একটা তথ্য ভিডিওটি থেকে জানা যাচ্ছে না। তবে তার অদ্ভুত রূপ দেখে প্রত্যেকেই অবাক হয়েছেন।

এমন বিরল প্রজাতির জীব জন্তু আজকাল সত্যিই আর দেখতে পাওয়া যায় না তার একমাত্র কারণ হল বনাঞ্চল কেটে ফেলা বনাঞ্চল কেটে ফেলার সাথে সাথে মানুষ যেমন নিজের পায়ে নিজে কুড়ুল মারছে ঠিক তেমনই পশুপাখি জীবজন্তু দেরও বাস্তুহারা করছে। এই ভিডিওগুলি মানুষকে এমন শিক্ষা দিতে পারে যে শিক্ষায় অন্তত মানুষ বুঝতে পারবে এ পৃথিবী শুধুমাত্র মানুষের বসবাসের জন্য নয়, এতে ভালো করে সুস্থ হয়ে বাঁচার অধিকার প্রত্যেকটা জীবজন্তুর রয়েছে।

https://www.facebook.com/de2b37cb-af64-4451-8e01-5a90e98b5480

Check Also

কাজের টাকা না দেয়ায় মালিকের পৌনে ৬ কোটির বাড়ি গুঁড়িয়ে দিলেন মিস্ত্রি

বাড়ি তৈরির কাজ করিয়েও পুরো টাকা না দেওয়ায় শাস্তি পেলেন জে কুর্জি নামের এক বাড়িওয়ালা। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *