Breaking News
Home / NEWS / Multiple Myeloma-তে আক্রান্ত কিরণ খের, কেমন ভাবে শরীরে বাসা বাঁধে এই মারণ রোগ? জানুন…

Multiple Myeloma-তে আক্রান্ত কিরণ খের, কেমন ভাবে শরীরে বাসা বাঁধে এই মারণ রোগ? জানুন…

ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত বলিউড অভিনেত্রী এবং বিজেপির পার্টির সাংসদ-অভিনেত্রী কিরণ খের। গতকাল টুইট করে এই সংবাদ দেন অনুপম খের। জানা গিয়েছে, গত বছর নভেম্বরে প্রথম জানা যায় মারণ রোগে আক্রান্ত হন অভিনেত্রী। মু্ম্বইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়। ডাক্তারি ভাষায় এই রোগকে বলা হয় Multiple Myeloma।

গত ১১ নভেম্বর কিরণের বাঁ হাত ভেঙে যায়। তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ (পিজিএমআইআর) হাসপাতালে। তখনই সামনে আসে, তিনি মাল্টিপল মেলোমায় আক্রান্ত। চিকিৎসাশাস্ত্রের ভাষায় এটি এক ধরণের রক্তের ক্যানসার। রোগটি ততদিন অভিনেত্রীর বাঁ হাত এবং ডান কাঁধে। চিকিৎসার জন্য কিরণকে নিয়ে আসা হয় মু্ম্বই। যেখন শরীরে কোনও কোষ অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পায়, তাকে ক্যানসার বলা হয়। রক্তের প্লাজমা কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধিকে বলা হয় Multiple myeloma।

Multiple Myeloma কী?
এটি এক ধরণের ক্যানসার যা সাদা রক্ত কোষে ঘটে থাকে যাকে প্লাজমা কোষ বলে। স্বাস্থ্যকর প্লাজমা কোষগুলি অ্যান্টিবডি তৈরি করে এবং সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সহায়তা করে। Multiple Myeloma-তে ক্যানসারযুক্ত প্লাজমা কোষগুলি হাড়ের মজ্জাতে জমা হয় এবং স্বাস্থ্যকর রক্তকণিকা নির্গত করে। স্বাস্থ্যকর অ্যান্টিবডি তৈরির পরিবর্তে ক্যানসার কোষগুলি অস্বাভাবিক প্রোটিন তৈরি করে যা জটিলতা তৈরি করতে পারে। এই কোষই যখন অস্বাভাবিক হারে বাড়তে থাকে তখন তাকে মাল্টিপল মেলোমা বলা হয়।

এই ক্যানসারের লক্ষণ কী?
এই রোগের লক্ষণগুলি বিভিন্ন হতে পারে। কখনও কখনও লক্ষণগুলি দেরিতে ধরা পড়ে।বিশেষ করে আপনার মেরুদণ্ড বা বুকে হাড়ের ব্যথা
হতে পারে। বমি বমি ভাব কোষ্ঠকাঠিন্য, ক্ষুধামান্দ্য হতে পারে। ক্লান্তি, বারবার সংক্রমণ, ওজন কমে যাওয়া, দুর্বলতা, অতিরিক্ত তৃষ্ণাও দেখা দিতে পারে।

কীভাবে এই রোগ নির্ণয় করা হয়?
অনেক সময়, কোনও লক্ষণ দেখা দেওয়ার আগে মাল্টিপল মেলোমা শনাক্ত করা যায়। নিয়মিত শারীরিক পরীক্ষা, রক্ত পরীক্ষা এবং প্রস্রাব পরীক্ষা ইত্যাদির মাধ্যমে এই ক্যানসার শনাক্ত করা যায়। রক্ত এবং প্রস্রাব পরীক্ষা,এম প্রোটিন পরীক্ষা করতে রক্ত এবং মূত্র পরীক্ষা করা হয়। এই প্রোটিনগুলি একাধিক মেলোমা বা অন্যান্য অবস্থার কারণে হতে পারে। ক্যানসার কোষগুলি বিটা -২ মাইক্রোগ্লোবুলিন নামে একটি প্রোটিন তৈরি করে যা রক্তে পাওয়া যায়। এছা়ড়া কিডনি ফাংশন, রক্ত কোষের গণনা, ক্যালসিয়াম স্তর,ইউরিক অ্যাসিড, এমআরআই স্ক্যান বা সিটি স্ক্যানের মধ্যামে এই রোগ নির্ণয় করা হয়।

বায়োপসি
বায়োপসি চলাকালীন, চিকিৎসকরা দীর্ঘ সুচ থেকে অস্থি মজ্জার একটি ছোট নমুনা বের করেন। নমুনা পাওয়ার পরে এটি পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হয়। ক্যানসারের কোষগুলির জন্য স্ক্রিন করা যেতে পারে।

Check Also

সরকারি হাসপাতালে Covaxin-এর দাম ৬০০টাকা, বেসরকারিতে ১২০০

সেরামের পর এবার ভারত বায়োটেক Bharat Biotech কোভ্যাক্সিনের Covaxin দাম ঘোষণা করল। রাজ্য সরকারগুলি কোভ্যাক্সিনের ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *