Breaking News
Home / HEALTH / প্রিয়জনের ধূমপানের অভ্যাস ছাড়াতে চান? রইল উপায়

প্রিয়জনের ধূমপানের অভ্যাস ছাড়াতে চান? রইল উপায়

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। ইহা ক্যানসারের কারণ। এমন কথা সিনেমা শুরুর আগে বা কোনও অনুষ্ঠান শুরুর আগে সব সময়ই শোনা যায়। যাতে শুধু ক্যানসারের কথা বলা হয়ে থাকে। কিন্তু মাথায় রাখা দরকার ক্যানসার ছাড়াও ধূমপানের একাধিক খারাপ দিক রয়েছে এবং স্বাস্থ্যের পক্ষে এটি পুরোপুরি ক্ষতিকারক। এই অভ্যেস হার্টের সমস্যা-সহ অন্যান্য কার্ডিও ভ্যাসকুলার ডিজিজ ডেকে আনতে পারে।

এক্ষেত্রে যিনি ধূমপান করছেন, তিনি তো নিজের বিপদ ডাকছেনই, যিনি ধূমপান করছেন না কিন্তু ফুসফুসে ধোঁয়া প্রবেশ করছে অর্থাৎ প্যাসিভ স্মোকার, তাঁরও বিপদ বাড়ছে। ফলে নিজের জন্য শুধু নয়, আশপাশের মানুষজনের জন্য, পরিবারের জন্যও এই অভ্যেস ত্যাগ করা প্রয়োজন।

প্রতি বছর মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহের বুধবার নো স্মোকিং ডে পালিত হয়। ধূমপানের অভ্যেস ত্যাগ করার জন্য এই দিন বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্য়মে প্রচার চলে। আমরা অনেকে হাজার চেষ্টা করেও ধূমপান ছাড়তে পারি না, এক্ষেত্রে এই টিপসগুলি সেই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। সাহায্য করতে পারে প্রিয়জনের ধূমপান ছাড়ানোর কাজেও।
ধূমপান ছাড়ার কথা মাথায় থাকলে, আগে ধূমপানের সঙ্গে জড়িত জিনিস, লাইটার, দেশলাই বা অ্যা- ট্রে নিজের হাতের সামনে থেকে সরাতে হবে।

নিজের কাজের ফাঁকেই গান শোনা বা ভিডিও দেখার পাশাপাশি ধূমপান স্বাস্থ্যে কী প্রভাব ফেলতে পারে, তেমন কোনও ভিডিও দেখা দরকার।

ধূমপান ছেড়ে দিলেও শুরুতে একটা ইচ্ছে থেকে যাবে, যা মেটাতে অনেকেই কফির সাহায্য নেয়। কিন্তু সেটা উচিৎ নয়। কফি থেকেও দূরে থাকা প্রয়োজন। চাইলে কোনও অসরকারি সংগঠন, যারা নেশামুক্তি নিয়ে কাজ করে, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।

যে সব বন্ধুরা ধূমপান করে না, তাদের সঙ্গে বেশি সময় কাটানো শুরু করা যেতে পারে বা যেখানে ধূমপান নিষিদ্ধ, সেখানে যাওয়া যেতে পারে। মাথায় রাখতে হবে, হাজার কাজ থাকলেও বিশ্রামের জন্য যেন সময় বের করে রাখা হয়। কারণ বিশ্রাম না পেলে ধূমপানের আসক্তি বাড়ে।

সারা দিনে নির্দিষ্ট পরিমাণ জল খাওয়া দরকার, পাশাপাশি ব্যায়াম করলে আরও ভালো।এখন সকলের কাছেই স্মার্টফোন রয়েছে। এই ফোনে ধূমপান থেকে বেরোনোর জন্য অনেক ধরনের অ্যাপ পাওয়া যায়, সেগুলি ডাউনলোড করতে পারেন।

ধূমপান থেকে বেরোতে সাহায্য করবে, পরিবারে বা বন্ধুদের মধ্যে এমন একটা গ্রুপ বানিয়ে নেওয়া উচিৎ।এছাড়াও ধূমপান বর্জন করার জন্য একাধিক হেল্পলাইন নম্বর আছে, যা বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠনের। তাদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা যেতে পারে। নিকোটিন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি হয়। সেটি প্রয়োগ করতে পারেন নিজের উপরে। এমন কোনও কাজে ব্যস্ত থাকতে হবে, যা পছন্দের, এতে ধূমপানের আসক্তি কমতে পারে। এছাড়াও মাথায় রাখতে হবে, নিজের কাছে এমন কিছু জিনিস রাখতে হবে, যা আসক্তি দূর করতে সাহায্য করবে।

এই সব কিছুর পর যখন ধূমপানের অভ্যেস চলে যাবে, তখন সেই সম্পর্কিত কোনও কোটেশন ফোনের বা ল্যাপটপের ওয়ালপেপারে রেখে দিতে হবে। যা রোজ অনুপ্রাণিত করবে।

Check Also

ক’রো’না’য় সুস্থ থাকতে ফুসফুসের ব্যায়াম

করোনাভাইরাস থেকে ফুসফুসকে রক্ষা করতে ও কার্যকারিতা বাড়াতে সাধারণ কিছু নিয়ম মেনে এখনই ঘরে বসে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *