Breaking News
Home / VIRAL / ডেলিভারি বয় সেজে মুখরোচক খাবারের বাক্সে পাঠালো চাকরির বায়োডাটা!

ডেলিভারি বয় সেজে মুখরোচক খাবারের বাক্সে পাঠালো চাকরির বায়োডাটা!

মহামারীর দরুন লক ডাউনে বহু মানুষের কাজ হারিয়েছে। আবার কেউ কেউ লক ডাউনেই উঠে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে। ভালো চাকরি পাওয়া আজকের দিনে একটা মরীচিকার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে। তার উপর আবার অনেক সময়েই চাকরির আবেদনপত্র বা সিভি পৌঁছায় না উপযুক্ত ব্যক্তির হাতে। তার পরিবর্তে একটা কাগজের মতো বায়োডাটার স্থান হয় ডাস্টবিনে। তাই চাকরি পাওয়ার চেষ্টা যাতে বিফলে না যায় সেজন্যে এই ব্যক্তি যা করেছে তা ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। পাশাপাশি তার এই বুদ্ধিদীপ্ত কৌশলে অবাকও হয়েছে সকলেই।

লোকটি ডেলিভারি বয় সেজে মুখরোচক খাবারের বাক্সে পাঠালো তার চাকরির আবেদনপত্র অর্থাৎ বায়োডাটা। সেই বাক্সে ছিল চারটি বড়ো ডোনাট। সেই বাক্সের মুখ খুলতেই সেখানে আটকানো ছিল একটি কাগজ। ডোনাট সমেত কাগজের সেই ছবি এই মুহূর্তে ভাইরাল হয়েছে। এই ঘটনাটি ২০১৬-এ ঘটলেও আবার সেটি জনপ্রিয় হয়েছে। সেই কাগজে লেখা ছিল, “বেশিরভাগ বায়োডাটা জমা হয় ডাস্টবিনে। আমারটি আপনার পেটে”। তিনি আরো লেখেন যে, “হাই, এই ডেলিভারিটি ভুল নয়। আমি ইচ্ছে করে ডেলিভারি বয়ের ছদ্মবেশে গেছি যাতে আমার বায়োডাটাটি একান্তভাবে আপনার হাতে পড়ে”। যিনি এই আবেদন পাঠিয়েছেন তার নাম লুকাস য়ালা। তিনি সান ফ্রান্সিস্কোতে স্থায়ী হতে চাইছিলেন।

তিনি এই যাবৎ এরকম ৪০ টি ডোনাট বাক্স ভর্তি আবেদন পাঠিয়েছেন। এর মধ্যে ১০ টি ইন্টারভিউতে তার ডাক পড়েছিল। তিনি বলেছেন যে তিনি সরাসরি সিদ্ধান্ত গ্রহণকারীদের কাছে তার বায়োডাটা পৌঁছাতে চেয়েছিলেন। কারণ তার ভয় ছিল যে সান ফ্রান্সিস্কোয় কাজ করার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন অন্যান্য চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় তিনি পেরে উঠবেন না।

এই বায়োডাটা ভাইরাল হওয়ার পর নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়ার পাহাড় জমতে থাকে। এক নেটিজেন মজা করে উত্তর দেন যে, “ধন্যবাদ। কিন্তু আপনাকে তবুও ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই আবেদন করতে হবে কারণ নিয়োগ ব্যবস্থাপনা প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়ে এটি”। আরেকজন আবার লেখেন, “টুইস্ট। আবেদনকারীদের থেকে আমরা উপহার গ্রহণ করতে পারি না। এর পরিণতিও ডাস্টবিনে”। অপর এক সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী আক্ষেপ করে লেখেন, “যদি প্রতিটি আবেদনপত্রের সঙ্গে ডোনাট দেওয়ার সামর্থ থাকতো আমার তাহলে চাকরি খুজতাম না”।

Check Also

কাজের টাকা না দেয়ায় মালিকের পৌনে ৬ কোটির বাড়ি গুঁড়িয়ে দিলেন মিস্ত্রি

বাড়ি তৈরির কাজ করিয়েও পুরো টাকা না দেওয়ায় শাস্তি পেলেন জে কুর্জি নামের এক বাড়িওয়ালা। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *