Breaking News
Home / VIRAL / ফেসবুকে 8 মাসের প্রেম, বিয়ে করতে এসে দেখে প্রেমিক অটো চালক ও প্রতিবন্ধী!

ফেসবুকে 8 মাসের প্রেম, বিয়ে করতে এসে দেখে প্রেমিক অটো চালক ও প্রতিবন্ধী!

ফেসবুকে আট মাস ধ’রে প্রেম’ প্রেমের টানে প্রেমিকের বাড়ি ছুটে গিয়ে কলেজ ছাত্রী প্রেমিকা দে’খতে পান প্রেমিক ইজি বাইক চালক ও শা’রীরিক প্রতিব’ন্ধী। সাথে সাথে যেন মাথায় আকাশ ভে’ঙে পরলো কলেজ ছাত্রী প্রেমিকার। মন ভে’ঙে চুরমা’র হয়ে যায় তার। ফি’রে আসতে চাইলো নিজ বাড়িতে। কিন্তু প্রেমিক ও স্থা’নীয়রা তরুণীকে আ’টকে রেখে ভ’য় ভীতি দেখিয়ে জোড় করে বিয়ের জন্য চা’প সৃষ্টি ক’রতে থাকে।

এমন সময় খবর পেয়ে এক আওয়ামী লীগ নেতা ওই তরুণীকে উ’দ্ধার করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেন। ঘ’টনা সূত্রে জা’নাগেছে’ ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসের প্রথম দিকে বাগেরহাটের শরণখোলা উপজে’লার ২নং’ খোন্তাকাটা ইউনিয়নের মধ্য খোন্তাকাটা গ্রামের জনৈক ব্যাক্তির অনার্স পড়ুয়া মেয়ে সুমি (২০) (ছদ্ম নাম) এর সাথে পিরোজপুর জে’লার মঠবাড়িয়া উপজে’লার আমতলা গ্রামের সেলিম মীরের ছেলে ইজিবাইক চালক রিয়াজ (২৬) এর সাথে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ম্যাসেজ আদান প্রদানের মাধ্যমে প্রেমের সূচনা হয়।এরপর ধীরে ধীরে তাদের প্রেম গ’ভীর হতে থাকে।

প্রেমিক রিয়াজ প্রথমেই তার শা’রীরিক স’মস্যা ও ইজি বাইক চালানোর কথা লুকিয়ে ছিলো প্রেমিকা সুমির কাছে। সুমি এসব কিছু না জে’নেই সরল বিশ্বা’সে ভালবেসে গেছে রিয়াজকে। এভাবেই ৭/৮ মাস ধ’রে ফোনের মাধ্যমে চলতে থাকে তাদের প্রেম।গত (১৭ জুন ২০২০) তারা সিদ্ধা’ন্ত নেয় দুজনে এক হবে এবং বিয়ে করে ঘর বাঁধবে। সিদ্ধা’ন্ত অনুযায়ী প্রেমিকা সুমি ও প্রেমিক রিয়াজ প’রিকল্পনা ক’রতে থাকে।

প’রিকল্পনা অনুযায়ী সুমি গত (২৪ জুন বুধবার) সকালে কাউকে না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ছুটে যান প্রেমিক রিয়াজে’র কাছে।সেখানে গিয়ে প্রেমিককে দেখে সুমির মাথায় যেন আকাশ ভে’ঙে পরলো। রিয়াজ যে প্রতিব’ন্ধী তা এই প্রথম দেখলো সুমি। এরপর জানতে পারলো প্রেমিক কোনোরকম পড়াশোনা জা’না একজন ইজিবাইক চালক। এসব দেখে সুমির মাথা ঘুরতে থাকে এবং সে সেখান থেকে বাড়ি চলে আসতে চায়

।কিন্তু রিয়াজ ও তার পরিবারের লোকজন সুমিকে আ’টকে রাখে এবং জো’র করে রিয়াজে’র সাথে বিবাহ দিতে চা’প সৃষ্টি করে ও ভ’য় ভীতি দেখায়। এদিকে সুমির পরিবার হন্নে হয়ে খুঁজে বেড়ায় মেয়েকে। কিন্তু কোথাও কোনো খোঁ’জ পায়না তারা। এরই মধ্যে (২৫ জুন) বৃহস্পতিবার মঠবাড়িয়া থেকে প্রেমিক রিয়াজে’র চাচা ইউপি সদস্য খলিল মীরের ফোন আসে তরুণীর বাড়িতে।

খবরে পেয়ে শরণখোলা উপজে’লার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন খাঁন মহিউদ্দিন বিষয়টা নিয়ে কথা বলেন খোন্তাকাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম সরদার এর সাথে। তিনি বিষয়টি তাকে বুঝিয়ে বললে (২৬ জুন) শুক্রবার সকালে ট্রলারযোগে স্থা’নীয় নেতা ক’র্মী দের নিয়ে তাইজুল ইসলাম মঠবাড়িয়া আমতলা ছুটে যান।

সেখানে গেলে ওই ছেলের পরিবার রিয়াজ ও সুমির বিবাহর প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে আ.লীগ নেতা তাইজুল নিজ ভূমিকায় সেখান থেকে সুমিকে উ’দ্ধার করে নিয়ে আসে এবং পরিবারের হাতে তুলে দেয় এ ব্যাপারে খোন্তাকাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম সরদার বলেন’ অনেক খোঁ’জাখুঁজির পর ওই ছেলের বাড়ী খুঁজে পাই।ওই ছেলের সাথে মেয়ের কখনই মিল হতে পারে না।

মেয়েটি শরণখোলার রায়েন্দা সরকারি কলেজে অনার্স প’ড়ে। তারা মেয়েটিকে আ’টকে রেখে ছেলে মেয়ের বিবাহ দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তা আম’রা ক’রতে দেয়নি। মেয়েকে সেখান থেকে উ’দ্ধার করে তার পরিবারের কাছে তুলে দিয়েছি

Check Also

এ’কেই বলে বন্ধুত্ব, অক্সিজেন সিলিন্ডা’র নিয়ে ১৪০০ কিমি পাড়ি

জীবন চলার পথে প্রত্যেকের জীবনে বন্ধু নামের বিশ্বাসী ও মজবুত একটি সম্পর্কের সৃষ্টি হয়ে যায়। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *