Breaking News
Home / HEALTH / ত্বকে’র উপর ৯ ঘণ্টা বেঁচে থাকে ক’রো’না’ভাইরাস, দাবি গবেষকদের

ত্বকে’র উপর ৯ ঘণ্টা বেঁচে থাকে ক’রো’না’ভাইরাস, দাবি গবেষকদের

ক’রো’না আবহে অত্যাবশ্যক পণ্যে পরিণত হয়েছে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার। প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়ে গেলেও, খুব শীঘ্র তার হাত থেকে রেহাই মিলেছে না বলে ইতিমধ্যেই আভাস দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। পরিচ্ছন্নতা নিয়ে আরও সাবধানী না হলে আরও বিপদ ঘনিয়ে আসছে বলে এ বার জানিয়ে দিলেন জাপানের কো’ভি’ড গবেষকরা। তাঁদের দাবি, মানুষের ত্বকের উপর ৯ ঘণ্টা পর্যন্ত সক্রিয় থাকতে পারে কোভিড-১৯ ভাইরাস। তাই কোভিড আক্রান্ত বা অন্য কেউ যাঁর ত্বকে আগে থেকেই ভাইরাসটি রয়েছে, তাঁদের সংস্পর্শে এলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি অনেকটা বেড়ে যেতে পারে।

স্পর্শ থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে কি না, তা নিয়ে গবেষণা করছিলেন ওই গবেষকরা। ক্লিনিক্যাল ইনফেকশাস ডিজিসেস জার্নালে তাঁদের গবেষণাপত্রটি প্রকাশ হয়েছে। তাতে সাধারণ ফ্লু ভাইরাসের (এ ক্ষেত্রে ইনফ্লুয়েঞ্জা এ ভাইরাস) সঙ্গে তুলনা টেনে বলা হয়েছে, যে প্যাথোজেন (ক্ষতিকারক অনুজীব) ফ্লু তৈরি করে, মানব ত্বকের উপর তা সাধারণত ১০৮ মিনিট বেঁচে থাকে। কিন্তু যে সার্স-কোভ-২ (কো’ভি’ড-১৯ সৃষ্টিকারী ভাইরাস) মানব ত্বকের উপর ৯ ঘণ্টা পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।

তবে ল্যাবরেটরির ভিতরের পরিবেশ এবং বাইরের পরিবেশ যেহেতু এক নয়, তাই বিষয়’টি আরও বিশদে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা প্রয়োজন বলে মত ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের। এ নিয়ে যোগাযোগ করলে আনন্দবাজার ডিজিটালকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেডিসিনের চিকিৎসক অরিন্দম বিশ্বাস বলেন, ‘‘গবেষণাগার এবং বাইরের পরিবেশ এক নয়। এ নিয়ে আরও বিশদে গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে। এই মুহূর্তে ভাইরাসকে ঠেকানোর মূল মন্ত্র হল বার বার হাত ধোওয়া, মাস্ক পরা এবং সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা।’’

এ ব্যাপারে একমত ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব কেমিক্যাল বায়োলজি-র বিজ্ঞানী শিল্পক চট্টোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, ‘‘করোনা রোগীর হাঁচি থেকে ড্রপলেট কারও ত্বকের সারফেসে এসে লাগলে, সেখান থেকে সংক্রমণ হতে পারে। তবে বাইরে সূর্যালোক আছে। আছে অতি বেগুনি রশ্মি। তাই ভাইরাস তুলনামূলক নিষ্ক্রিয় থাকবে। গবেষণাগারের পরিবেশ কৃত্রিম। তাই এ নিয়ে আরও কাজ করা প্রয়োজন।’’

কোভিড রোগীর মৃত্যুর পর অটোপসি করে তাঁর ত্বকের নমুনা সংগ্রহ করে গবেষণাটি চালিয়েছেন জাপানের গবেষকরা। তাতে দেখা গিয়েছে, ইথানল প্রয়োগের ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে করোনাভাইরাস এবং ফ্লু ভাইরাস নিস্ক্রিয় হয়ে যায়। হ্যান্ড স্যানিটাইজারেও ইথানল থাকে। তাই ঘন ঘন হাত ধোওয়ার উপর জোর দিয়েছেন গবেষকরা। সংক্রমণ ঠেকাতে ঘন ঘন হাত ধোওয়া যে জরুরি, শুরু থেকেই তাতে জোর দিয়ে আসছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)।

Check Also

নাক-কান-গলায় কিছু ঢুকে গেলে কী করবেন জেনে রাখুন

অনেকসময় না বুঝেই শিশুরা কিছু জিনিস নাক-কান কিংবা গলায় দিয়ে ফেলে। অনেক সময় তা বিপজ্জনকও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *