Breaking News
Home / LIFESTYLE / গোলাপকে জড়িয়ে অতি বিরল নীল রঙের সাপ, ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

গোলাপকে জড়িয়ে অতি বিরল নীল রঙের সাপ, ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

প্রকৃতিতে সাপের বিভিন্ন রকম প্রকারভেদ রয়েছে। এমন কিছু সাপ রয়েছে যা সচরাচর দেখাই যায়না। আর এই সকল সাপের মধ্যে অতি বিরল সাপ হল পিট ভাইপার। আর এই পিট ভাইপার সাপগুলিও আবার বিভিন্ন রঙের হয়ে থাকে। যেমন কমিটির রং হয় নীল, কোনটি আবার আকাশি ধরনের রঙের। আবার ভারতে সবুজ রং জাতীয় এক ধরনের পিট ভাইপার সাপের দেখা পাওয়া যায়। এই সাপগুলি বিষধর সাপ।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই একটি ভিডিও আপলোড হয়েছে যে ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে যে, একটি গোলাপকে জড়িয়ে রয়েছে। আর এই ভিডিও আপলোড হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এর ভিউয়ের সংখ্যা বেড়ে চলেছে হুহু করে। ভিউয়ের সংখ্যা বেড়ে চলাটাই স্বাভাবিক। কারণ এমন সাপের সচরাচর দেখা মেলেনা। যে কারণে অতি আগ্রহের সাথে সোশ্যাল মিডিয়া এই সাপটিকে নিয়ে মজেছেন।

সাপটিকে দেখার পর সোশ্যাল নাগরিকদের মধ্য থেকে উঠে আসছে নানান ধরনের মন্তব্য। কেউ বলছেন অভূতপূর্ব, কেউ আবার অন্য কিছু। আর যে প্রোফাইল থেকে এই ভিডিওটি আপলোড হয়েছে সেখানে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে, ‘ব্লু পিট ভাইপারের অভূতপূর্ব দৃশ্য’। ইতিমধ্যেই এই অভূতপূর্ব দৃশ্যের দর্শন করে ফেলেছেন এক লক্ষের বেশি মানুষ। পাশাপাশি সমানতালে চলছে কমেন্ট, লাইক এবং রিটুইট।

তবে এই সাপ অসম্ভব সুন্দর হলেও তীব্র বিষধর বলে জানিয়েছেন বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞদের মতে এমন নীল পিট ভাইপার পৃথিবী থেকে প্রায় বিলুপ্ত। যদিওবা কোনটা রয়ে গেছে তবুও তাদের দেখা মেলা ভার। এরা মূলত হোয়াইট লিপ ভাইপারের নীল সংস্করণ। ইন্দোনেশিয়া এবং পূর্ব তিমুরে এদের দেখা পাওয়া যায়।


জাতীয় বন্যপ্রাণ অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর সদস্য দীনবন্ধু বিশ্বাস জানিয়েছেন, “ভাইপার গোষ্ঠীর সাপ সরাসরি বাচ্চার জন্ম দেয়। বিষদাঁত আকারে অনেকটা বড়। দাঁত ইনজেকশনের সূচের ন্যায় ফাঁপা। বিষদাঁত দুটি মুখের মধ্যে কব্জার মতো ভাজ করে রাখে। এদের বিষ হিমোটক্সিক প্রকৃতির। এদের নাসারন্ধ্রে কাছে দু-দিকে দুটি ছিদ্র থাকে, যাকে পিট বলে। এর সাহায্যে শত্রু ও শিকারের উপস্থিতি বুঝতে পারে, থার্মালইমেজ তৈরি করে। এরা দিনে ও রাতে সক্রিয়। অলস প্রকৃতির হয়। মাথা বড় আকারের, চোখ ও বড় আকারের হয়।”

Check Also

রা’ন্না ছাড়াও মাইক্রোওভেন দিয়ে এই কাজ গুলো ক’রতে পারেন যা আগে কখনই করেন নি!

মাইক্রোওভেন এখন প্রায় প্রতিটি মধ্যবিত্ত পরিবারেই সামিল৷ খাবার গরম ক’রতে মাইক্রোওভেনের ব্যবহার আম’রা সবাই জানি৷ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *