Breaking News
Home / NEWS / অ’কথ্য ভাষায় গালি’গালাজ দিলেন অমিতাভ, ট্রো’লের জ’বাবে দিলেন চ’রম হুমকি

অ’কথ্য ভাষায় গালি’গালাজ দিলেন অমিতাভ, ট্রো’লের জ’বাবে দিলেন চ’রম হুমকি

যে ব্যক্তি যত বেশি বিখ্যাত হন সমালোচনা তাকে ঘিরে ততবেশি হয়। একথা সকলেরই কমবেশি জানা। বিখ্যাত ব্যক্তিদের নিয়েই ট্রোল হয় আর বিখ্যাত ব্যক্তিদের নিয়েই আলোচনা হয়। অনেক কুকথা ও অশ্রাব্য গালিগালাজ‌ও দেখতে পাওয়া যায় বিখ্যাত ব্যক্তিদের পোস্টে। অনেকে এই সকল কমেন্ট দেখে মেজাজ হারিয়ে ফেলেন, অনেকে আবার চুপচাপ থেকে যান এগুলোকে সেভাবে পাত্তাই দেন না।

সম্প্রতি অমিতাভ বচ্চনের পোস্টেও কেউ খারাপ মন্তব্য করেছেন। অন্য সময় অমিতাভ এই সকল কু কথা নিয়ে মাথা ঘামান না। সকল নেতিবাচক মন্তব্য কুকথা কে এড়িয়ে চলে যান কিন্তু এইবার তাকে দেখা গেল যে নেতিবাচক সেই মন্তব্যের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে কথা বলতে যা এর আগে কখনো দেখা যায়নি। অমিতাভের এই নতুন রূপ দেখে সকলেই বিস্মিত। নিজের চিরাচরিত স্বভাবের বাইরে গিয়ে ট্রোলারকে চাঁচাছোলা ভাষায় জবাব দিলেন বর্ষীয়ান এই অভিনেতা। নিজের ব্লগে প্রকাশ্যে বাবা তুলে তাঁকে তুলোধনা করে ছাড়লেন বিগ-বি।

গত ১১ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়ে নানাবতী হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই অগণিত ভক্ত আরোগ্য কামনা করছেন তাঁর। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে তো তাঁর সুস্থতা কামনায় করা হচ্ছিল পুজোও। এ সবের মাঝখানেই এক নেটাগরিক নিজের পরিচয় লুকিয়ে অমিতাভকে লেখেন, “করোনায় তো মরে গেলে পার।” নিজের দীর্ঘ কেরিয়ারে এখনও পর্যন্ত নম্র, মার্জিত স্বভাবের পরিচয় দিলেও এ বার আর সহ্য করতে পারেননি তিনি।


ওই মন্তব্যের উত্তরে অমিতাভ বচ্চন করা ভাষায় লিখেছেন-“কেউ চায় যে আমি কোভিডের সংক্রমণেই মরে যায় , তুমি যেই হও তুমি নিজের বাবার নামটাও এখানে লেখোনি কারণ তুমি নিজেই জানো না যে তোমার বাবা কে?”

এর সাথে অমিতাভ আরও লিখেছেন-“দুটো ঘটনা ঘটতে পারে হয় আমি বাঁচবো, নয় আমি মরে যাব,যদি আমি মরে যাই তাহলে কোন সেলিব্রেটির নাম জড়িয়ে তোমার কুকথা লেখার কী হবে করুণা হয়।”যিনি কথা লিখেছেন তাকে উদ্দেশ্য করে অমিতাভ আরো বলেছেন-“জানবে অমিতাভ বচ্চন কে আক্রমণ করে এইসব কথা লিখেছ বলেই তুমি নজরে এসেছো। এইসব করে কিছু হবেনা।আর যদি আমি ভগবানের দয়ায় বেঁচে থাকি এবং সুস্থ থাকি তাহলে শুধু আমার কাছ থেকে নয় আমার নয় কোটি একনিষ্ঠ ভক্ত দের থেকেও নিন্দার ঝড় সামলাতে হতে পারে।

আমার ভক্তরা আমার বর্ধিত পরিবার।আমি আমার ভক্তদের এখনো এসব বলিনি তবে যদি আমি বেঁচে যায় তাহলে ওদের সবই বলবো জেনে রেখো তারা একটা জোরালো শক্তি যা বিশ্বের পূর্ব থেকে পশ্চিম উত্তর থেকে দক্ষিনে ছড়িয়ে আছে তারা শুধুমাত্র একটি বর্ধিত পরিবারই নয় সেই বর্ধিত পরিবার নিমেষে ভস্ম করে দিতে পারে আমি তাদেরকে শুধু এটুকুই বলার অপেক্ষা যে-‘ঠোক দো সালে কো’।”

অমিতাভের এরকম তির্যক ভাষায় আক্রমণ কে কেন্দ্র করে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গেছে।চিরকালীন নম্র-ভদ্র ব্যবহারের বিগ বি কীভাবে এরকম কঠিন তির্যক ভাষায় আক্রমণ করতে পারেন তা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন। কিছু দিন ধরেই নিজের ব্লগে অমিতাভ লিখছিলেন কী ভাবে ক্রমশ একাকীত্ব গ্রাস করছে তাঁকে।

দু’দিন আগে তিনি লেখেন, ‘‘কাছের মানুষ বলতে এখন ডাক্তারবাবু। যিনি আমার দেখভাল করছেন। তিনি ছাড়া আর কারও ঘেঁষার অনুমতি নেই তাই চোখ ভিজে উঠলেও মুছিয়ে দেওয়ার মতো কোনও হাত আমার পাশে নেই।” । একাকীত্ব, করোনা, সঙ্গে মৃত্যুকামনা… বিগবি যে মানসিক ভাবে বিধ্বস্ত তা ভাল ভাবেই আঁচ করা যায়।

Check Also

১ দিনের শিশুকন্যাকে ফেলে গেল বাবা-মা, কান্না শুনে আগলে রাখল রাস্তার কুকুর

একবিংশ শতাব্দিতে দাঁড়িয়েও কন্যা সন্তানের প্রতি অনীহার ছবিটা যেন বদলাচ্ছে না। চতুর্থীর সন্ধে, দুর্গাপুজোর শেষ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *