Breaking News
Home / VIRAL / হাতে জলের বোতল দেখেই ছুটে এসে জল খেলো কাঠবেড়ালি, ভিডিও ভাইরাল

হাতে জলের বোতল দেখেই ছুটে এসে জল খেলো কাঠবেড়ালি, ভিডিও ভাইরাল

কেউ রাস্তা দিয়ে জলের বোতল হাতে নিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন আর সেই জলের বোতল দেখে হঠাৎ কোন কাঠবেড়ালি হাজির হয়ে জল চেয়ে বসলো! এমন দৃশ্য সচরাচর তো দূরের কথা দেখা যায় না বললেই চলে। তবে এই বিরল দৃশ্যের একটি ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে রাস্তা দিয়ে এক যুবক জলের বোতল হাতে হেঁটে যাচ্ছেন। আর সেই জলের বোতল দেখে যুবকের কাছে হাজির এক ছোট্ট কাঠবেড়ালি। তারপর সে আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিচ্ছে জল খেতে চায়।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওটি আইএফএস অফিসার সুশান্ত নন্দা তার টুইটার হ্যান্ডেলে পোস্ট করেছেন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে জলের বোতল দেখে ওই যুবকের কাছে যখন কাঠবেড়ালিটি হাজির হয় তখন ওই যুবক প্রথমে কিছু বুঝতে পারেননি। তারপর যখন বারবার কাঠবেড়ালিটি বোতলের দিকে হাত নাড়ে এবং বোতলের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করে তখন ওই যুবক জলের বোতলটির ছিপি খুলে বাড়িয়ে দেন কাঠবেড়ালির দিকে। আর তারপরেই ঢকঢক করে জল খেতে শুরু করে ওই কাঠবেড়ালি।

হাতের কাছে জল পেয়ে ওই কাঠবেড়ালি দুই হাত দিয়ে বোতল আঁকড়ে ধরে এবং বেশ কিছুক্ষণ ধরে জল খেয়ে তার পিপাসা মেটায়। যেভাবে কাঠবেড়ালিটিকে ঢকঢক করে জল খেতে দেখা গিয়েছে তাতে বোঝাই যাচ্ছে যে বেশ কিছুক্ষণ ধরেই পিপাসিত অবস্থায় ছিল সে। তারপর দুই হাত ধরে জল খেয়ে পিপাসা মেটানোর পর সে চলে যাই অন্য প্রান্তে। আর এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই সোশ্যাল মিডিয়ার নেটিজেনরা কাঠবেড়ালির বুদ্ধির তারিফ করেছেন।

পাশাপাশি ওই কাঠবেড়ালিটি এবং ভিডিওটি আরও একটি বার্তা দেয়। যা হলো পানীয় জলের অপচয় রোধ। আমরা বিভিন্ন প্রান্তে লক্ষ্য করি পানীয় জলের অপচয় হতে। বারংবার সচেতনতা বার্তা প্রদান সত্বেও এই অপচয় সেভাবে বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। আজ যেমন একটি অবলা জীব পানীয় জলের অভাবে পিপাসিত, অদূর ভবিষ্যতে আমরাও যদি পানীয় জলের অপচয় বন্ধ না করি তাহলে এই ভাবেই হয়তো একদিন এক ফোঁটা জলের জন্য ছুটে বেড়াতে হবে, হাত পাততে হবে অন্য কারোর কাছে। সুতরাং ওই কাঠবেড়ালির বুদ্ধির তারিফ করার পাশাপাশি চলুন আমরাও সচেতন হয় পানীয় জলের অপচয় ঠেকাতে।

Check Also

১ বছরের কন্যাকে ব্যাগে ভরে ডেলিভারি বয়ের কাজ সামলাচ্ছেন বাবা, ভিডিও দেখে কান্না নেটিজেনদের

আমাদের কাছে ঈশ্বর থাকতে পারেন না বলে তার বিকল্প হিসেবে আমাদের কাছে পাঠিয়ে দেন বাবা-মাকে। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *