Breaking News
Home / LIFESTYLE / কলার খোসার এই ৫টি উপকার হয়তো আমাদের অনেকেই এখনো অজানা রয়েছে….

কলার খোসার এই ৫টি উপকার হয়তো আমাদের অনেকেই এখনো অজানা রয়েছে….

আমরা সবাই তো কলা খেয়ে থাকি।তবে কলার পুষ্টিগুণ সম্বন্ধে আমরা প্রায় সবাই জানি।কিন্তু কলার খোসারও যে বিশেষ কিছু উপকারিতা রয়েছে,তা কিন্তু আমাদের অনেকেরই অজানা-
১.কোষ্ঠকাঠিন্য কমায়
যারা কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন তারাই জানেন নিয়মিত পেট পরিষ্কার না হওয়াটা কতটা কষ্টের। এক্ষেত্রে খাদ্যতালিকায় বেশি করে আঁশজাতীয় খাবার রাখতে হবে। কলার খোসায় প্রচুর পরিমাণ খাদ্যআঁশ থাকে। তাই কলার খোসা খেলে কোষ্ঠকাঠিন্যে উপকার পাবেন। কাঁচা কলার খোসা বেঁটে ভর্তা খাওয়া যায় কিংবা পাকা কলার খোসা ধুয়ে পরিষ্কার করে মিল্ক স্মুদিতে দিতে পারেন।

২.দাঁত সাদা করতে
দাঁতের রঙ হলুদ হওয়াটা খুব অস্বস্তির। দাঁত সাদা করতে অনেকধরনের জিনিস আমরা ব্যবহার করে থাকি। তবে এদের অধিকাংশের মধ্যেই ব্লিচিং উপাদান থাকে যা দাঁতের উপরের অংশে থাকা এনামেল ক্ষয় করে। ফলে দাঁতে শিরশিরানি দেখা দেয়। কিন্তু সস্তায় ঘরোয়া পদ্ধতিতেই দাঁতের হলুদ দাগ দূর করতে পারেন। এর জন্য প্রয়োজন কলার খোসা। এতে থাকা পটাশিয়াম দাঁত সাদা করে। খোসা চিবনোর প্রয়োজন নাই। কলার খোসার ভেতরের অংশ দিয়ে দুই সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন ঘষুন।

৩.বলিরেখা কমাতে
ত্বকে নানারকম বয়সের দাগ ও বলিরেখা মুছে ফেলতে ব্যবহার করতে পারেন কলার খোসা। এতে থাকা প্রচুর পরিমাণ এন্টি এক্সিড্যান্ট ত্বকের জন্য দারুণ উপকারি। যেসব জায়গায় বয়সের ফলে ছোপ বা বলিরেখা পড়েছে সেসব জায়গায় সরাসরি কলার খোসা ঘষে তিরিশ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৪.ঘুম ভালো হয়
কলার খোসা কিন্তু ঘুম আসতেও সাহায্য করে। এতে থাকা প্রচুর পরিমাণ ট্রিপটোফ্যান ও সেরোটনিন নামক ফিল গুড (মন ভালো করা) রাসায়নিক ঘুম আনে। রাতে কলার খোসা খেলে তাই শুধু ভালো ঘুমই হবেনা, সারাদিন মুডও ভালো থাকবে। তবে কলার খোসা খাচ্ছি ভেবে মানসিক চাপ নিলে ফল পাবেন না। তাই খোলা মনেই কলার খোসা পরিষ্কার করে পেস্ট বানিয়ে দুধের সাথে মিশিয়ে খেয়ে নিন।
৫.কোলেস্টেরল কমায়
খাদ্যআঁশে ভরপুর খাবার আমাদের শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। কলার খোসায় কলার তুলনায় বেশি খাদ্যআঁশ থাকে। তাই কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে কলার খোসা উপকারি।

Check Also

রা’ন্না ছাড়াও মাইক্রোওভেন দিয়ে এই কাজ গুলো ক’রতে পারেন যা আগে কখনই করেন নি!

মাইক্রোওভেন এখন প্রায় প্রতিটি মধ্যবিত্ত পরিবারেই সামিল৷ খাবার গরম ক’রতে মাইক্রোওভেনের ব্যবহার আম’রা সবাই জানি৷ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *