Breaking News
Home / NEWS / কোন রেশন কার্ডে পাবেন কতটা চাল-গম-আটা, জানুন আপনার অধিকার

কোন রেশন কার্ডে পাবেন কতটা চাল-গম-আটা, জানুন আপনার অধিকার

করোনা ভাইরাসের বিপর্যয়ে দেশ দীর্ঘ লকডাউনের কবলে। আর এমত অবস্থায় দুঃস্থ দরিদ্রদের পরিবারে দেখা দিয়েছে খাদ্য সঙ্কট। এই পরিস্থিতিতে প্রান্তিকি মানুষদের মধ্যে চরম খাদ্যের অভাব তৈরী হচ্ছে। সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবার থেকে রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-২ এর অন্তর্গত প্রাপকদের প্রতিমাসে ৫ কেজি করে চাল দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

রাজ্য সরকারের নতুন এই পরিকল্পনার আওতায় রয়েছেন যোজনা-১ এর প্রাপকরাও। সঙ্কট মোকাবিলায় কেন্দ্র থেকে প্রতিটি রাজ্যে পাঠানো হচ্ছে বিপুল পরিমাণ চাল, যাতে গরীব মানুষের অনাহারের অবস্থা সৃষ্টি না হয়। কিন্তু সেই চাল পশ্চিমবঙ্গে এলেও গুদামজাত হয়ে পড়ে আছে বলে অভিযোগ। এমন বিপর্যয়ে রাজ্য সরকারের এই ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

তিনি বলেছেন, “জেলায় জেলায় রেশনের সঙ্কট চলছে, রাজ্য সরকার অভুক্ত মানুষের হাতে চাল তুলে দিতে পারছে না। রেশন ডিলাররা বলছে আমাদের কাছে দেবার মতো চাল নেই। অথচ কেন্দ্রের পাঠানো বিনামূল্যে ১ লক্ষ ২৫ হাজার টন চাল FCI গোডাউনে পড়ে আছে। কেন রাজ্য সরকার ক্ষুধার্ত মানুষের কাছে এই চাল পৌঁছে দিচ্ছে না।”

কেন্দ্র ও রাজ্যের রাজনৈতিক দড়ি টানাটানিতে গরীব মানুষদের জন্য প্রয়োজনীয় চাল সরবরাহ বিঘ্নিত হচ্ছে। যৌথ পরিকল্পনার অভাবে রাজ্য ও কেন্দ্রের বিলি ব্যবস্থায় সমন্বয় থাকছে না। কেন্দ্রের এই বিলি ব্যবস্থার বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে কারা কারা ও কত পরিমাণ রেশন পাবেন। ১ লা এপ্রিল থেকে ৩০শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত (৬মাস) কেন্দ্রীয় প্রকল্পের এই খাদ্য সামগ্রী বিলি করা হবে।

কোন রেশন কার্ডে কত পরিমাণ সামগ্রী পাওয়া যাবে?

যে সব উপভোক্তা অন্তোদয় অন্ন যোজনার (AAY) অন্তর্ভুক্ত, মাসিক বিতরণে তাঁরা চাল ১৫ কেজি পরিবার পিছু, ২০ কেজি গম অথবা ১৯ কেজি আটা পাবেন বিনামূল্যে, চিনি ১৩.৬০ টাকা প্রতি কেজি পরিবার পিছু পাবেন।
অগ্ৰাধিকার প্রাপ্ত পরিবার (PHH) ও বিশেষ পরিবার (SPHH) মাসিক হিসাবে ২ কেজি করে চাল ও ৩ কেজি গম অথবা ২.৮৫০ কেজি আটা প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক বিনামূল্যে পাবেন।

রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা-১ (RKSY -1) তে মাসিক ভিত্তিতে ২ কেজি চাল প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক, ৩ কেজি গম প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক বিনামূল্যে পাবেন।
রাজ্য খাদ্য সুরক্ষা যোজনা–২ (RKSY-2) অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তিরা ১ কেজি করে চাল ১৩ টাকায়, গম ১ কেজি ৯ টাকায় প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক পাবে।
যারা বিশেষ উপজাতি, তাঁরা ৮ কেজি করে চাল ও ৩ কেজি করে গম প্রাপ্ত বয়স্ক অনুযায়ী বিনামূল্যে পাবেন।

এতদিন যোজনা-২ এর আওতায় থাকা মানুষদের বিনামুল্যে ২ কেজি চাল ও ৩ কেজি গম দেওয়া হত। কেউ গম না নিতে চাইলে তাকে ৩ কেজি চাল দেওয়া হত। এবার যোজনা ১ এর আওতায় থাকা প্রাপকদেরও ৫ কেজি করে চাল বিনামূল্যে দেওয়া হবে। জুলাই মাস পর্যন্ত প্রকল্পের আওতায় থাকা প্রাপকদের এই খাদ্যদ্রব্য দেওয়া হবে।

এই বিপুল পরিমাণ মানুষদের প্রতিমাসে ৫ কেজি করে চাল দিতে হলে দরকার প্রচুর পরিমানে চালের যোগান। সমস্যার সমাধানে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে তৈরী করা হয়েছে ‘অন্নদাত্রী’ নামে একটি মোবাইল অ্যাপ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই এই অ্যাপের নামকরণ করেছেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে চাষীদের থেকে চাল সংগ্রহ করবেন রাজ্য সরকার। মূলত সামাজিক দূরত্বের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

কৃষকদের সম্মতি নিয়ে তবেই রাজ্য সরকার এই ধান কিনবেন।অন্নদাত্রী অ্যাপের মাধ্যমে চাল বিক্রি করতে ইচ্ছুক চাষিদের নাম,ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর দিতে হবে। সরকার সেই সব চাষিদের সাথে যোগাযোগ করবেন। চাষিদের থেকে চাল সংগ্রহ করার জন্য বড়ো ও ছোটো পণ্যবাহী গাড়ির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।নির্ধারিত স্থানে ওই গাড়ি পৌঁছে যাবে। গাড়িতেই থাকবে চাল ওজন করার যন্ত্র। চাল মেপে অর্থ দিয়ে কিনে নেবেন সরকার। তবে কৃষকদের হাতে অর্থ দেবেন না সরকার। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে চাষিদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সেই টাকা দেওয়া হবে। অন্নদাত্রী অ্যাপের পাশাপাশি টোল ফ্রি নম্বরে ফোন করেও চাষিরা যোগাযোগ করতে পারবেন।

এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনো সরকারি নির্দেশনামা জারি না হলেও খাদ্য সরবরাহ বিভাগের সচিব পারভেজ আহমেদ সিদ্দিকি সমস্ত জেলাশাসকদের ভিডিও কনফেরেন্সের মাধ্যমে এই রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন। রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপের প্রশংসা করছেন অনেকেই। সরকারের এই পদক্ষেপে রেশন প্রাপকরা ও কৃষকেরা উভয়েই উপকৃত হবেন বলে মনে করছেন তাঁরা।

Check Also

১ দিনের শিশুকন্যাকে ফেলে গেল বাবা-মা, কান্না শুনে আগলে রাখল রাস্তার কুকুর

একবিংশ শতাব্দিতে দাঁড়িয়েও কন্যা সন্তানের প্রতি অনীহার ছবিটা যেন বদলাচ্ছে না। চতুর্থীর সন্ধে, দুর্গাপুজোর শেষ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *