Breaking News
Home / VIRAL / মাত্র ৬ টাকায় লটারির টিকিট কেটে কোটিপতি!

মাত্র ৬ টাকায় লটারির টিকিট কেটে কোটিপতি!

কখন যে কার ভাগ্য বদলে যায় কেও বলতে পারে না। আজ যে রাজা কাল সে ফকির, আবার কাল যে ফকির আজ সে রাজা। লটারি কেটে রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার গল্প কেবলমাত্র সিনেমাতেই দেখেছেন। আদেও যে তা সত্যি হতে পারে তা হয়তো স্বপ্নেও ভাবেননি সিভিক ভলিন্টিয়ার ফিরোজ আলম। রাতারাতি কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেছেন তিনি। পেশায় সিভিক ভলিন্টিয়ার ফিরোজ খানের আগে পিছে ঘুরছে পুলিশ।

হরিশচন্দ্রপুরের ফিরোজ আলম। আট বছর আগে তার বাবা বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে মারা যান। পরপরই মারা যান তার দাদা। মা, বৌদি, ভাইজির দায়িত্ব ফিরোজের কাঁধে। মাথার ওপরের ছাদটাও টালির। সংসারের একমাত্র রোজগেরে ফিরোজ কোনোভাবে সিভিক ভলিন্টিয়ারের কাজ জোটালো। টানাটানির সংসার। কিন্তু ঈশ্বরকে ডাকা ছাড়া তো উপায় নেই। ফিরোজ শুরু করলো লটারি কাটা। প্রহর গুননে লাগলো একটা জ্যাকপটের। মা লক্ষ্মী বোধহয় আর মুখ ফিরিয়ে রাখতে পারলেন না। মাত্র ৬ টাকা দিয়ে লটারির টিকিট কেটে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেলেন ফিরোজ।

রোজকার মতোই হরিশচন্দ্রপুরের তুলসিহাটা মোড়ে সিভিক ভলিন্টিয়ারের কাজ করছিলেন ফিরোজ, তবে যাওয়ার আগে ৬ টাকা মূল্যের একটি লটারির টিকিট কেনেন তিনি। কাজে ব্যাস্ত ফিরোজের আর টিকিটের কথা খেয়াল ছিল না। হয়তো ভেবেছিলেন অন্যবারের মতোই এবারের ভাগ্য সাথ দেবে না। দুপুরের দিকে ফিরোজের বন্ধু তাকে ফোনে জানান, লটারি জিতেছেন তিনি। বিশ্বাস করতে পারেননি ফিরোজ। ফিরোজের কোটি টাকার লটারি জেতার কথা শুনে তার কাছে থানা থেকে ফোন আসে।

থানায় গিয়ে টিকিটের নম্বর মিলিয়ে নিশ্চিত হন তিনি সত্যিই লটারি জিতেছেন। সদ্য কোটিপতিকে নিরাপত্তা দিতে এখন তার আগে পেছনে ঘুরছে পুলিশ। ফিরোজ বাবুর সাথে একটা সেলফি নিতে ছুটে এসেছেন পাড়া প্রতিবেশি থেকে বন্ধু বান্ধবরা। ফিরোজ বাবু অবশ্য বলেছেন, ওই টাকা দিয়ে আগে মাথার একটা ছাদ তৈরী করবেন। দেখতে হবে বিধবা মা ও বৌদিকে। এখন ফিরোজ বাবুর মূল লক্ষ্য তার ভাইজিকে পড়াশোনা শিখিয়ে মানুষের মতো মানুষ করা।

Check Also

মাটি খুঁড়ে মিলছে ‘হিরা’, গুঞ্জনে গ্রামে তোলপাড়!!

উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্য নাগাল্যান্ডের প্রত্যন্ত গ্রামে হঠাৎ গুঞ্জন উঠল ‌‘হীরক ভাণ্ডারের’ সন্ধান মিলেছে। মাটি খুঁড়লেই ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *