Breaking News
Home / VIRAL / “বাইরে করোনা আছে তুমি যেওনা”, পুলিশ বাবাকে অনুরোধ শিশুর, ভাইরাল ভিডিও

“বাইরে করোনা আছে তুমি যেওনা”, পুলিশ বাবাকে অনুরোধ শিশুর, ভাইরাল ভিডিও

করোনা আতঙ্কে এখন ভুগছে গোটা দেশ। ঘরে থাকাটাই এই মুহূর্তে সব থেকে সেভ।কেন্দ্র থেকে রাজ্য সরকার সকলেই বারংবার অনুরোধ করে যাচ্ছে ঘরে থাকার জন্য।সাধারণ মানুষ থেকে সেলিব্রিটি সকলেই তাই এখন ঘরের মধ্যে সিঁধিয়ে গেছেন। হ্যাঁ ঘরে থাকাটাই এখন এই মুহূর্তে সবথেকে নিরাপদ। সাধারণ মানুষ থেকে সেলিব্রেটি সকলেই তাই এখন ঘরে। নিজেদের মত তারা ব্যস্ত হয়েছেন নানান কাজে।কেউ গান করছেন।কেউ ব‌ই পড়ছেন।কেউ বানাচ্ছেন টিকটক ভিডিও। কিন্তু ডাক্তার, নার্স, সাফাই কর্মী আর পুলিশ অধিকর্তা এবং কর্মচারীদের ছুটি নেই। তার ব্যস্ত নিজেদের কর্তব্য পালনে।

আগামী 21 দিনব্যাপী লকডাউন চালু হয়েছে সমগ্র দেশে। আর এই লকডাউন কে ফলপ্রসূ করবার জন্য পুলিশ অধিকর্তাদের তো রাস্তায় থাকতেই হচ্ছে। চাইলেও তারা বাড়ির মধ্যে থাকতে পারছেন না। তাদের কর্তব্য পালনের জন্য তাদের বাড়ির বাইরে আসতেই হয়। ঝুঁকি নিয়ে তারা কাজে বেরোচ্ছেন এই অবস্থায়।

এই মুহূর্তে ভাইরাল হয়েছে এরকম একটি ভিডিও যেখানে দেখা যাচ্ছে যে একজন পুলিশ অধিকর্তা তিনি ডিউটিতে বেরোনোর জন্য রেডি হচ্ছেন এবং তার মেয়ে তাকে অনুরোধ করছেন তিনি যেন কাজে না যান কারণ বাইরে করোনা রয়েছে। বাইরে বেরোলে তার ক্ষতি হতে পারে।‌শিশুটি তার বাবাকে বলছে যে- বাবা বাইরে করোনা ভাইরাস আছে। শিশুটি কাঁদছে আর বলছে। আর তার বাবা তাকে সান্ত্বনা দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছেন যে, “আমি কেবল ২ মিনিটের জন্য বাইরে যাব”। আধ মিনিটের এই ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে যে শিশুটি নাছোড়। তার বাবাকে বাড়ি ছেড়ে যেতে মানা করছে বারংবার।

হৃদয়স্পর্শী এই ভিডিওটি এই মুহূর্তে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে সকলের। এই ভিডিওটি তাই মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়েছে। অসংখ্য মানুষ শেয়ার করেছেন এই ভিডিওটি। আপনি যদি এই ভিডিওটি এখনো না দেখে থাকেন তাহলে এক্ষুনি একবার ভিডিওটি দেখে নিন। এই মহামারী এই আতঙ্কের মধ্যে একজন পুলিশ অধিকর্তা যে নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে এগিয়ে যান এই ভিডিওটি তার প্রমান।

Check Also

অবিশ্বাস্য! চিনের আকাশে একসঙ্গে ৩ ঘণ্টা ঝলমল করল তিনটি সূর্য, পিছনে কোন রহস্য?

একই আকাশে তিনটি সূর্য (Sun)! না, কোনও কল্পবিজ্ঞানের কাহিনিতে পড়া অন্য গ্রহের ঘটনা নয়। সত্যিই ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *