Home / NEWS / মাস্কের নামে পাকিস্তানে ‘অন্তর্বাস’ পাঠাল চীন…

মাস্কের নামে পাকিস্তানে ‘অন্তর্বাস’ পাঠাল চীন…

figure>

করোনার উৎপত্তি হয় চিন থেকে। এরপর চিনের সীমানা ছাড়িয়ে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পরে করোনার তান্ডব। কিন্তু চিন এখন করোনা মুক্ত। চিনের দাবি কোনোরকম প্রতিষেধক ছাড়াই শুধুমাত্র প্রতিরোধক ব্যবস্থার উপর ভর করেই করোনা মুক্ত হয়েছে তাঁদের দেশ। অন্যান্য দেশগুলি অর্থনৈতিক ভাবে দূর্বল হলেও এই করোনার প্রতিরোধ বস্তু রপ্তানি করে আবার ফুলে ফেঁপে উঠছে চিন।

অন্যদিকে পাকিস্তান সরকার করোনা পরিস্থিতি সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন। পাকিস্তানে নেই পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য পরিকাঠামো। নেই পর্যাপ্ত ভেন্টিলেশন। হাসপাতালগুলিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে করা হচ্ছে চিকিৎসা ফলে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তাই এই পরিস্থিতিতে একমাত্র চিন পারে পাকিস্তানকে সাহায্য করতে।

পাকিস্তান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ মেনে বন্ধু দেশ চিনের কাছ থেকে N95 মাস্ক আনানোর সিদ্ধান্ত নেয়। চিনও অবশ্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। বন্ধুর আবদার মতো N95 মাস্ক পাঠায়। কিন্তু ট্রাঙ্ক খুলতেই দেখা গেল অন্তর্বাস দিয়ে তৈরী স্পঞ্জের মাস্ক পাঠিয়েছে চিন। বিপদে পড়লে বন্ধুই তো বন্ধুকে সাহায্য করে কিন্তু ঠিক উল্টোটাই হল পাকিস্তানের সাথে। করোনার প্রতিরোধক পাঠিয়ে একপ্রকার পাকিস্তানকে বোকা বানিয়েছে চিন।

চিন পাকিস্তানে N95 মাস্কের ট্রাঙ্ক পাঠালে তা চলে যায় সরাসরি চিকিৎসকদের কাছে। কিন্তু চিকিৎসকেরা সেই মাস্ক পড়তে রাজি নন। চিকিৎসকদের দাবি চিনের পাঠানো মাস্ক N95 নয়। চিন আন্ডারগের্মেন্টস ও স্পঞ্জ দিয়ে তৈরী মাস্ক পাঠিয়েছে। চিকিৎসকেরা অবশ্য এর জন্য দুষছেন সরকারকে।

তাঁদের মতে, মাস্কের মতো একটা গুরুত্বপূর্ন জিনিস কেন ঠিকভাবে দেখে নেওয়া হল না! স্বাভাবিকভাবেই এই খবর চাপা থাকেনি। সংবাদমাধ্যমে এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই এই কঠিন পরিস্থিতিতেও হাসির রোল ওঠে পাকিস্তানের মানুষদের মধ্যে। ঠাট্টার সাথে সাথে ইমরানের দিকে অভিযোগের তির ছোঁড়েন পাকিস্তানবাসী। তাঁরা সরাসরি ইমরান সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।


পাকিস্তানের করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে। দ্রুত পরিস্থিতি সামাল দিতে না পারলে কিছুই করা সম্ভব হবে না। চিন ও পাকিস্তানের বন্ধুত্বের কথা সারা বিশ্ব জানে। তাই বিপদে পরে বন্ধুর স্মরণাপন্ন হন পাকিস্তান। কিন্তু ইমরান সরকার ভাবতেও পারেননি বন্ধু এমন ধোঁকা দেবে।

রীতিমতো ভাইরাল ভিডিয়োর অংশ এখন ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। যদিও এই ভিডিয়োটির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম এই ভিডিয়োটিকে ‘ভুয়ো’ বলে জানিয়েছে। তাদের দাবি, NBTV নামের কোনও বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্যম পাকিস্তানে নেই। এটি পাকিস্তানকে নিয়ে ঠাট্টা করার করার জন্য পোস্ট করা হয়েছে।

Check Also

আকাশে উড়ন্ত বিমানে আগুন, দাউ দাউ করে নীচে পড়ছে জ্বলন্ত টুকরো!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফের বিমান দুর্ঘটনা। দূর্ঘটনার ডেনভার থেকে হাওয়াই যাওয়া এক বিমান। জানা গিয়েছে, হঠাৎ ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *