Breaking News
Home / HEALTH / করোনাভাইরাস নিয়ে মনের ভয় কাটাতে ৯টি পরামর্শ…

করোনাভাইরাস নিয়ে মনের ভয় কাটাতে ৯টি পরামর্শ…

করোনাভাইরাসের মহামারিতে অনিশ্চয়তার মুখে বিশ্ব। মহামারি সম্পর্কে আসতে থাকা খবর মানুষকে অস্থির করে তুলছে। বাড়াচ্ছে মনের উদ্বেগ। ভুগছেন মানসিক সমস্যায়ও। ফলে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকিও।

এমন পরিস্থিতিতে যারা মানসিকভাবে নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলতে বসেছেন এবং আতঙ্ক ও উদ্বেগে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের জন্য রইলো ৯টি পরামর্শ।

১. স্বাস্থ্যসংক্রান্ত সংবাদ এড়িয়ে চলুন
আপনাকে উদ্বিগ্ন ও দুশ্চিন্তিত করতে পারে এমন খবর দেখা, পড়া ও শোনা থেকে বিরত থাকুন। নিজেকে ও প্রিয়জনদের সুরক্ষার জন্য করণীয়গুলো জেনে প্রস্তুতি নিন। নির্দিষ্ট সময়ে তথ্যের আপডেট জানুন।

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলার ভয় এবং অনিশ্চয়তা মেনে নিতে না পারাই এনজাইটি ডিজঅর্ডারের সাধারণ লক্ষণ। স্বাভাবিক ভাবেই যাদের এ সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য বর্তমান পরিস্থিতি আরও কঠিন হয়ে পড়েছে।

এ অবস্থায় নিজের মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য খবর পড়া কমিয়ে দিন এবং কী পড়ছেন সে বিষয়ে সতর্ক থাকুন।

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে অনেক ভুল তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে অনলাইনে। তাই বিশ্বাসযোগ্য সূত্র ছাড়া অন্য উৎসের তথ্যে ভরসা করা উচিত হবে না। সরকারি বা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য বিশ্বাস করা উচিত।

টুইটার বা অন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উদ্বেগ সৃষ্টিকারী হ্যাশট্যাগ বা কি-ওয়ার্ড মিউট করে রাখা যায় যেন সেগুলো সামনে না আসে।

২. সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে এমন নিশ্চয়তা চাইবেন না
প্রিয়জনের কাছ থেকে বা কাছের কোনো মানুষের কাছে বারবার এই কথা শুনতে যাবেন না যে সব ঠিক হয়ে যাবে। এভাবে মনকে ভুল বুঝ দিতে গেলে বরং আপনার মানসিক উদ্বেগ আরো বাড়বে। তারচেয়ে বরং বাস্তব পরিস্থিতি যেমন সেভাবে তা উপলব্দি করুন। এবং তা মোকাবিলায় প্রস্তুতি নিন।

৩. গুগলে লক্ষণ সার্চ করা বন্ধ করুন
মানসিক উদ্বেগ নিয়ে গুগলে সার্চ করতে থাকলে তা আপনার উদ্বেগ আরো বহুগুনে বাড়িয়ে দিবে। তারচেয়ে বরং এটা বুঝুন যে পরিস্থিতি যে কোনো সময় যেকোনো দিকে মোড় নিতে পারে। তাহলেই বরং আপনি নিজের পরিস্থিতির ওপর নিজের নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে পারবেন।

৪. ভীতিকর চিন্তাগুলোর বিপরীত চিন্তা করুন
আপনি হয়তো ভাবছেন এই ভাইরাসে আপনার প্রিয়জন সবাই মারা যেতে পারে। এই ধরনের ভাবনা না ভেবে বরং ভাবুন যে বাস্তবে করোনায় আক্রান্ত বেশিরভাগ মানুষই সুস্থ হয়ে উঠছে। সুতরাং আমারা আক্রান্ত হলেও সুস্থ হয়ে উঠবো।

৫. শরীরচর্চা করুন
শরীরচর্চা করলে অনেক সময় দেহের ভেতরে নিঃসরিত অ্যাড্রিনালিন আপনার সিস্টেমের বাইরে অন্য কোথাও চলে যাবে। এবং আতঙ্ক কমিয়ে আপনার মনকে শান্ত করে আনবে।

৬. জোরে শ্বাসগ্রহণ এবং মাটিতে বসে ব্যায়াম করুন
যোগশাস্ত্রে নির্দেশিত সুগন্ধি নিয়ে শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ এবং মাটিতে বসে যেসব ব্যায়াম আছে সেগুলো করুন। এতে আপনি বাস্তবতায় ফিরে আসবেন।

৭. প্রতিদিন শুধু একটি নির্দিষ্ট সময়ে উদ্বিগ্ন হউন
প্রতিদিন নিজের জন্য আধাঘন্টা সময় বরাদ্দ করুন। শুধু যে সময়টাতেই আপনি উদ্বিগ্ন হবেন। এরপর অন্য কিছু করুন।

৮. নিজেকে কিছু স্পেশাল ট্রিট দিন
আপনাকে একটু উদ্দীপনা যোগাতে পারে এমন যে কোনো কিছুই আপনার উদ্বেগ কমাতে কাজে লাগবে। ভালো কোনো খাবরা রান্না করে খান। অথবা গরম পানি দিয়ে গোসল করুন। অথবা পছন্দের কোনো গান শুনুন।

৯. আর মনে রাখবেন আপনার মানসিক উদ্বেগ স্থায়ী কোনো বিষয় নয়
মানসিক উদ্বেগে আক্রান্ত হলে অনেক সময় মনে হয় যেন এর কোনো শেষ নেই। কিন্তু সত্য হলো সবকিছুরই শেষ আছে। সুতরাং আতঙ্কিত হয়ে নিজের প্রতি অবিচার করবেন না।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Check Also

হার্ট অ্যাটাকের এক মাস আগে থেকেই দেহ যে ৭টি সিগনাল দেয়

আপনি জানেন কি? হার্ট অ্যাটাকের এক মাস আগে থেকেই দেহ কিছু সতর্কতা সংকেত দিতে শুরু ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *