Breaking News
Home / HEALTH / করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ঘরোয়া পদ্ধতির স্যানিটাইজার বিশেষ কার্যকরী, রইল তথ্য..

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ঘরোয়া পদ্ধতির স্যানিটাইজার বিশেষ কার্যকরী, রইল তথ্য..

চিন সহ গোটা বিশ্বে ত্রাস হয়ে দাঁড়িয়েছে নভেল করোনা ভাইরাস। প্রায় প্রতিদিন এই ভাইরাসের শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। পাশাপাশি বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। এই ভাইরাস আতঙ্কে ইতিমধ্যে ইউহান প্রদেশের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখছে চিনও। এই ভাইরাস প্রতিরোধে একাধিক বিশেষজ্ঞ জানাচ্ছেন হাত মুখ পরিষ্কার রাখতে। প্রয়োজন পড়লে স্যানিটাইজার ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন তারা। পাশাপাশি জানাচ্ছেন রাস্তাতে বেরোলে মাস্ক ব্যবহার করতে।

ভারতেও ইতিমধ্যে প্রভাব ফেলেছে এই ভাইরাস। ইতিমধ্যে ৩৯ জন ভারতে এই ভাইরাসের শিকার হয়েছেন। এই অবস্থাতে দিল্লি সহ একাধিক রাজ্যতে সংকট দেখা দিয়েছে মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের। তবে এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে যাতে কালোবাজারি শুরু না হয় সেদিকে নজর দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে।

এই ভাইরাস প্রতিরোধে একাধিক বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন সাবান এবং জল দিয়ে বারবার হাত মুখ ধুতে। এছাড়াও রাস্তাঘাটে একান্ত বাধ্য হয়ে বেরোতে হলে যেন অ্যালকোহল যুক্ত স্যানিটাইজার সঙ্গে রাখেন যাতে হাত পরিষ্কার নেওয়া যায়। তবে এই ধরনের স্যানিটাইজারই নয়, ঘরোয়া পদ্ধতিতে সঠিক ভাবে বানানো স্যানিটাইজারও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে বলেও জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই জাতীয় স্যানিটাইজারে রোগজীবাণু ধ্বংস করার ক্ষমতা যথেষ্ট বেশী। আর যেহেতু এই ভাইরাস খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে আর বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন মানুষের সংস্পর্শে এই ভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছে। তাই ভিড় জায়গা এড়িয়ে চলতে। তাতে কিছুটা হলেও সুরক্ষিত থাকা যাবে।

এই বিশেষ ধরণের স্যানিটাইজার বেশীরভাগ ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি প্রস্তুত করে থাকে। সাধারণ স্যানিটাইজারে অ্যালকোহল থাকে না। তাই এই স্যানিটাইজারের জীবাণু ধ্বংসের ক্ষমতা অ্যালকোহল যুক্ত স্যানিটাইজারের থেকে কম হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা একাধিক সতর্কতা জারি করেছে এই ভাইরাস প্রতিরোধে। পাশপাশি সরকারের তরফ থেকেও একাধিক সচেতনতামূলক কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। তবে যে সকল জায়গাতে এই জাতীয় সুবিধা পেতে সাধারণ মানুষকে যথেষ্ট অসুবিধার মধ্যে পরতে হয় সেই সব ক্ষেত্রে ঘরে বানানো স্যানিটাইজার এই ভাইরাস প্রতিষেধকের ভূমিকা নিতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে তা সঠিক পদ্ধতিতে বানাতে হবে। নাহলে ওই স্যানিটাইজারের কার্যক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠে যাবে।

কেবলমাত্র অ্যালকোহল নয় একাধিক ফার্মা কোম্পানির বানানো স্যানিটাইজারে থাকে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। যা ত্বকের কোনরকম ক্ষতি তো করেই না উপরন্তু যথেষ্ট উপকারী।

তবে যদি স্যানিটাইজার না থাকে সেক্ষেত্রে ঘনঘন হাত মুখ ধোয়া যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত মুখ ধুতে যাতে এই ভাইরাসের হাত থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

Check Also

পুরুষদের বন্ধ্যাত্বের সমস্যা বাড়ছে, কী কী খেয়াল রাখতেই হবে

কো’ভি’ড আবহে গৃহবন্দী থাকায় জন্ম হার বাড়বে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন। কিন্তু ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *