Breaking News
Home / NEWS / প্রশান্ত মহাসাগরে প্রায় ২০ হাজার ফুটবল মাঠের সমান পাথরখণ্ড ভাসছে সমুদ্রে!

প্রশান্ত মহাসাগরে প্রায় ২০ হাজার ফুটবল মাঠের সমান পাথরখণ্ড ভাসছে সমুদ্রে!

প্রশান্ত মহাসাগরে একটি প্রকাণ্ড ভাসমান আগ্নেয়শিলার সন্ধান দিল দুই নাবিক। অস্ট্রেলিয়ার কাছের প্রশান্ত মহাসাগরে এই নতুন ও বিশাল পাথরের আবিষ্কারের ফলে স্বভাবতাই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন জীববিজ্ঞানীরা।

সম্প্রতি গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের জেরে গ্রেট বেরিয়ার রিফ প্রায় ধ্বংসের মুখে। যার ফলে বিলুপ্তির মুখে বিশাল সংখ্যক সামুদ্রিক প্রাণী। তবে এই বিশালাকার আগ্নেয়শিলার সন্ধান পাওয়ায় ফের সামুদ্রিক জীববৈচিত্র প্রাণ ফিরে পাবে বলে মনে করছেন জীববিজ্ঞানীরা।

এই আগ্নেয় পাথরটি সমুদ্রের উপরিভাগে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার বিস্তৃত। গোটা ম্যানহাটান শহরটি এই পর্বতের মধ্যে ঢুকে যেতে পারে। এটি প্রায় ২০ হাজার ফুটবল মাঠের সমান। মনে করা হচ্ছে, অগ্ন্যুত্‍পাতের ফলেই এই বিশালাকার পাথেরর সৃষ্টি। এর গায়ে প্রচুর গর্ত ও কালো দাগ রয়েছে।

গত ৯ আগস্ট, প্রশান্ত মহাসাগর পার হওয়ার সময় এই দৈত্যাকার পাথরের হদিশ পান এক অস্ট্রেলিয়ান দম্পতি। তারা অনলাইনে জানান, আমরা এক পাহাড়ি ধ্বংসস্তূপের মধ্য দিয়ে প্রবেশ করি। যেখানে বাস্কেটবল থেকে মার্বেলের সাইজের পিউমিস পাথর দিয়ে তৈরি শিলাটি মহাসাগরের উপর ভেসে রয়েছে। চাঁদের আলোয় ও বোটের স্পটলাইটে এই পাথর স্পষ্ট দেখা গেছে।

একই দিনে, নাসাও এই ভাসমান নয়া পর্বতের হদিশ দেয়। নাসার স্পেস স্যাটেলাইটেও এই বিশালাকার পাথর দেখতে পাওয়া যায়। একই তথ্য নিয়ে নাসাও সেই ছবি প্রকাশ করে এদিন। তবে, এই ভাসমান বিশালাকার আগ্নেয়পর্বতে অস্ট্রেলিয়ার কোরাল রিফের সামুদ্রিক জীববৈচিত্রকে অনেকটাই স্বস্তি দেবে বলে মনে করছেন ড. জুটজেলার।

Check Also

রাজ্যজুড়ে ভারি থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস! আবাহাওয় দফতরের সর্তকতা জারি

রাজ্যজুড়ে ভারি থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস! আবাহাওয় দফতরের সর্তকতা জারি- উত্তর প্রদেশের উপরে থাকা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *