Breaking News
Home / INSPIRATION / ২১ লাখের মার্কিন চাকরি ছেড়ে ভারতীয় সেনায় যোগ দিলেন মেঘনা…

২১ লাখের মার্কিন চাকরি ছেড়ে ভারতীয় সেনায় যোগ দিলেন মেঘনা…

রাজস্থানের যোধপুরের মেয়ে মেঘনা সিং। তিনি বাড়ির বড় মেয়ে। তাই বাবা মায়ের খুব ভালোবাসা পেয়ে বড় হয়েছে সে। তার ছোট থেকে অসম্ভভ মেধা। আর এই মেধাবী মেঘনাকে আমিরিকা নিজের করে নিতে চেয়েছিল। কিন্তু দেশের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কারনে আমেরিকার লাখ টাকার চাকরির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন মেঘনা।

তিনি শুধু রাজস্থানের নয় গোটা ভারতবর্ষের গর্ব। তার মত বয়সের অন্যান্য মেয়েরা সাজগোজ করে, ফ্যাশন আইকন হতে চায়। আর মেঘনা বেছে নিয়েছে নিজের জন্য এক কঠিন জীবন। সে বেছেছে ভারতীয় সেনার কাজ। সেনাবাহিনীতে মেয়েরা সাধারণত যোগ দিতে চায়না। তাই এই ঘটনা অবশ্যই বিশেষ।

মেঘনা ভারতীয় স্থল সেনার লেফটেন্যান্ট। আপাতত সে চেন্নাইয়ে কড়া ট্রেনিঙ্গে আছে। আর্মির পরীক্ষায় উত্তির্ন হওয়া বেশ কষ্টসাধ্য ব্যাপার। কিন্তু মেঘনা স্থল, জল ও বায়ূ তিনটি উইংইয়েই পাশ করেছে। তার ছোট থেকেই ইচ্ছা ছিল ভারতীয় সেনায় যোগ দেওয়া।

তাই সে আমেরিকার লাখ টাকার চাকরি ছেরে দিয়েছে। এর আগে সে ব্যাঙ্গালোরে একটি চাকরি করতো। তার মাইনেও নেহাত কম ছিলোনা। সেখানে চাকরি করলেও তার মনে সেনাতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা থেকেই যায়। সে চাইলেই পারত বিলাশবহুল জীবন কাটাতে।

কিন্তু সে ছোট থেকেই চাইত দেশের জন্য কিছু করতে। শুধু তার ইচ্ছা না, তার বাবা মায়েরও ইচ্ছা ছিল তাদের মেয়ে দেশের জন্য কিছু করুক। ব্যাঙ্গালোরে পাঁচ মাস চাকরি করলেও বরাবরই তার মধ্যে একটা অসহায়তা কাজ করত।

তার মা চাইতেন তার মেয়ে পড়াশোনা করে হয় সরকারি অধিকার, নয় সেনাবাহিনীতে যোগ দিক। তার মায়ের এমন ইচ্ছার কারন ছিল তিনি ভাবতেন দেশের জন্য কিছু করলে সারা দেশের মানুষ তাকে সম্মান করবে। আর মেঘনার ইচ্ছা ছিল অন্য কারনে।

সে এই দেশের মেয়ে হয়ে অন্য দেশের জন্য কাজ করতে ইচ্ছুক নয়। সে এই দেশের হয়েই কাজ করতে চায়। সে স্কুল কলেজে পড়াশোনা করে বিলাসবহুল চাকরি করলেও নিজের মন থেকে সেনায় অংশগ্রহন করার ইচ্ছা কখনো মুছে ফেলতে দেয়নি।

তার পরিবার তার এই সাফল্যে দারুন আনন্দিত। তার বাবা রাম সিং কালবী খুব উচ্ছসিত এবং তার মা বিভা সিং তার প্রেরণা দাত্রী। তার এক বোন ও এক ভাই রয়েছে। তাদের কাছে মেঘনা হল জীবনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরনা।

Check Also

বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে কিডনি উপহার দিলেন স্ত্রী

একেই বলে হয়তো ভালোবাসার উপহার ৷ ফুলের তোড়া নয়, নয় ক্যান্ডেল লাইটল ডিনার ৷ দামি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *