Breaking News
Home / NEWS / মাঝনদীতে সেলফি তুলতে গিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন দুই কলেজ ছাত্রী

মাঝনদীতে সেলফি তুলতে গিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন দুই কলেজ ছাত্রী

এখনকার যুগে অল্পবয়সী ছেলেমেয়েদের সামনে সেলফি তোলাটাই হলো ট্রেন্ড। সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্লাটফর্মে লাইক, শেয়ার পাওয়ার জন্য, নিজেদের নানান ধরনের সেলফি তুলে ধরার জন্য কত কি না করে থাকে তারা। আর এই সেলফি তোলার ক্ষেত্রে বারংবার অনেকজনকে দেখা গেছে নিজেদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে ঠেলে দিতে। শুধু ঠেলে দেওয়া নয় প্রাণহানীর মতো ঘটনাও চোখে পড়ে দেশীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে। ঠিক তেমনি এবারও সেলফি তোলার এমন ঘটনা ঘটলো, যাতে দেখা গিয়েছে অল্পের জন্য প্রাণে বাচঁলেন দুই কলেজ ছাত্রী।

লকডাউন কিছুটা লঘু হতেই জনা ছয়েক কলেজ ছাত্রী একঘেয়েমি কাটাতে ঠিক করেন মধ্যপ্রদেশের পেঞ্চ নদীতে বনভোজন করার। আর পরিকল্পনা মতোই তারা নদীর ধারে পৌঁছে যান বনভোজন করতে। বনভোজন করার সময় খরস্রোতা ওই নদীর মাঝে থাকা পাথরের উপর দাঁড়িয়ে সেলফি তোলার সখ জাগে দুই কলেজ তরুনীর।

আর তার পরেই দুজনে ওই নদীর মাঝে পাথরের উপর চলে যান সেলফি তুলতে। কিন্তু খরস্রোতা নদীতে হঠাৎ করে জলের স্রোত বাড়তে থাকে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে ঝর ঝর করে নদীতে জল বইতে শুরু করে। তারপর ওই পাথরের উপর থেকে আর ভয়ে নামার সাহস করেননি ওই দুই তরুণী।

সেখান থেকেই তারা দুজনে চিৎকার করতে শুরু করেন। অন্যদিকে নদীর পাড়ে থাকা বাকি চার বন্ধু তাদের চিৎকার শুনে ভয়ে তারাও চিৎকার করতে শুরু করেন। আর সকলের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন পুলিশকর্মীরা। এরপর ১২ জন পুলিশ কর্মী এবং স্থানীয় বেশকিছু বাসিন্দা ওই দুই কলেজ ছাত্রীকে উদ্ধারের জন্য নদীতে নামেন এবং তাদের সাহায্যে উদ্ধার করা হয় ওই দুই কলেজ ছাত্রীকে।

সেলফি তুলতে গিয়ে এমনভাবে বিপদের মুখে পড়ে প্রাণে বেঁচে আসার পর ওই দুই কলেজ ছাত্রী তাদের উদ্ধার করার জন্য স্থানীয় বাসিন্দা এবং পুলিশকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। পাশাপাশি তারা এটা স্বীকার করে নিয়েছেন, ‘এইভাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেলফি তুলতে যাওয়াটা ঠিক হয়নি।’

Check Also

একেই বলে ভালোবাসা! স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়লো স্বামীর!!!

সং’যুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই শহরে বসবাসকারী ৩২ বছর ব’য়সী এক ভারতী’য় নাগরিক নিজের অ্যাপার্টমেন্টে লাগা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *