Breaking News
Home / VIRAL / পড়তে বসে রেগে গিয়ে বাবাকে মেয়ের প্রশ্ন “তুমি মাকে বিয়ে” ক’রলে কেন? মা তো’মার থেকে অ’ন্য ভালো বর পেতো, ভিডিও ভাই’রাল

পড়তে বসে রেগে গিয়ে বাবাকে মেয়ের প্রশ্ন “তুমি মাকে বিয়ে” ক’রলে কেন? মা তো’মার থেকে অ’ন্য ভালো বর পেতো, ভিডিও ভাই’রাল

গত দুই মাসের মধ্যে আমরা অনেক কিছুই সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন নতুন জিনিস আবিষ্কার করতে পেরেছি। কখনো কেউ ভালো গান গেয়ে, কেউবা ভালো নাচ করে মনোরঞ্জন করেছেন সকলের। মনোরঞ্জন করার তালিকায় শিশুরাও পিছিয়ে নেই।

কিছুদিন আগেই সুশান্ত সিং রাজপুতের একটি সিনেমার গান গেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসা কুড়িয়েছে একটি শিশু। আবার কিছুদিন আগে বাবার লেখা স্বরচিত কবিতা পাঠ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছে একটি ১০ বছরের মেয়ে।কখনো সুন্দর নাচ করে আমাদের মন জিতে নেয়, কখনো ভালো আবৃত্তি করে, খারাপ মন ভালো করে দেয়।

এমনই একটি ছোট মেয়ের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। না, শিশুটি কোন নাচ বা গান করছে না। শিশুটি কিছুতেই তার বাবার কাছে পড়তে বসবে না।তাহলে প্রশ্ন হলো, এতে অভিনবত্ব কি?অভিনবত্ব হলো ভিডিওটির মধ্যে যে শিশুটিকে দেখা যাচ্ছে, তার কিছু পাকা পাকা কথা, যাকে বলে বড়দের মতো, তা শুনে হেসে লুটোপুটি খাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার ইউজাররা।

শিশুটি ভিডিওর প্রথম থেকেই কাঁদতে শুরু করেছে। তার একটাই বক্তব্য সে তার বাবার কাছে পড়তে বসবে না। বারবার সে তার বাবাকে শাসন করতে যাচ্ছে। দাদু দিদাকে সামনে বসতে বলছে। আবার দাদু এলে, তাকেও শাসন করতে ভুলছে না।

তার বক্তব্য, সে একা একা পড়বে। বাবা তাকে পড়ালে সে পড়বে না।বাবার ভয়ে সে উঠে চলে যেতেও পারছে না। বারবার নিজের মাকে রান্নাঘর থেকে আসতে বলছে। এই ভাবেই চলতে চলতে, হঠাৎ সে বলে ওঠে, কেন তুমি আমার মাকে বিয়ে করলে? না অন্য কাউকে বিয়ে করতে পারতো। তুমি আমার বাড়ি থেকে চলে যাও। এই কথা শুনে আরো হেসে ওঠে তার বাড়ির লোক।

মা তোমাকে বিয়ে করলো কেনো?অন্য বর কে আনতে পারতো🙄😂 সংগ্রহীত 🤐

মা তোমাকে বিয়ে করলো কেনো?অন্য বর কে আনতে পারতো🙄😂সংগ্রহীত 🤐

Posted by মেঘমালা ツ on Thursday, July 2, 2020

পড়াশোনা নিয়ে এর আগেও অনেকগুলো ভিডিও সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছিল। কিন্তু এই মিষ্টি মেয়ের, বড়দের মতো কথা, সবাইকে অবাক করে দিয়েছে।

Check Also

এক’ফোটা দুধ পেতে মৃ’ত মায়ের পা’শে অবুঝ শিশুর আর্তনাদ

মাকে ডাকছে অবুঝ শিশু। কিন্তু সন্তানের ডাকে সাড়া নেই মায়ের। মা যখন সাড়া দিচ্ছে না ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *