Breaking News
Home / NEWS / স্কুলের হোস্টেলের মধ্যে সন্তানের জন্ম দিলেন ক্লাস ১১ এর ছাত্রী…

স্কুলের হোস্টেলের মধ্যে সন্তানের জন্ম দিলেন ক্লাস ১১ এর ছাত্রী…

বর্তমান সমাজ যে কোথায় চলে যাচ্ছে তার উদাহরন আবার পাওয়া গেল এক স্কুল ছাত্রীর ঘটনায়। বর্তমান যুব সমাজ যে কতটা বেপরোয়া হয়ে যাচ্ছে এই ঘটনা তার প্রমান। এক স্কুল ছাত্রীকে ঘিরে এক চাঞ্চল্যকর ঘটনার সৃষ্টি হয়েছে। পড়াশোনার নামে এইসব কেন হচ্ছে তা ভাবার বিষয়। স্কুল হোস্টেলের মধ্যে এক বাচ্চার জন্ম দিয়েছে ক্লাস ইলেভেনের এক ছাত্রী।

এই ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে ওই হোস্টেলে। কি করে স্কুল হোস্টেলে এমন ঘটনা ঘটল তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। স্কুলের হোস্টেলে এরুপ ঘটনা ঘটলে তা স্কুলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে বলে অনেকেই মনে করছেন।

এমনকি এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ছত্রিশগড়ের দান্তেওয়ারা এলাকায় পাতারাস নামের একটি স্কুলের হোস্টেলে এই ঘটনা ঘটে। ক্লাস ইলেভেনের এক ছাত্রী স্কুল হোস্টেলের মধ্যে এক সন্তানের জন্ম দেয়। এই ঘটনার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ তা জানতে পারে।

তারাই সাথে সাথে ওই ছাত্রীকে নিয়ে স্থানীয় হাসপাতালে যাওয়া হয়। সেখানে দেখা যায় যে সন্তানের জন্ম দিয়েছে সেটি মৃ’ত সন্তান। হাসপাতাল সুত্রের খবর ওই ছাত্রী বর্তমানে সুস্থ রয়েছে কিন্তু সন্তান মৃ’ত। স্কুল কর্তৃপক্ষ মৃ’ত সন্তানকে ছাত্রীটির বাবা মায়ের হাতে তুলে দেয়।

ওই ছাত্রীটির কথায় গ্রামের এক ছেলের সাথে তার সম্পর্ক ছিল বছর দুয়েক ধরে। বহুবার ওই ছেলেটির সাথে শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে। তার ফলে এরম ঘটনা ঘটে। কিন্তু স্কুল হোস্টেলে থাকার পর কি করে এই ঘটনা ঘটে তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

এই ঘটনার জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। স্কুল হোস্টলের মান নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। কি করে একটা স্কুল হোস্টেলে এরকম ঘটনা ঘটতে পারে তা নিয়ে অনেক কথা উঠেছে। ওই ছাত্রীকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ছাত্রীর বাড়িতে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলেন কিছুই জানেন না তারা এই সম্পর্কে। তাদের কোনো কথাই বলেননি তাদের মেয়ে। বর্তমান জীবন যে কথায় চলে গেছে এটি তারই একই উদাহরণ।

Check Also

হাওড়া স্টে’শনে এই ভুল’টি করলে’ই এবার মোটা টাকার জরিমানা, পড়ুন বিস্তারিত

স্টেশনে কিংবা ট্রেনের বগির ভিতরে বিজ্ঞাপন দিয়েও কোনো কাজের কাজ হচ্ছে না, জোরদার চলছে মাইকে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *