Breaking News
Home / INSPIRATION / লন্ডনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ক’রোনা-ভ্যা’কসিন তৈরিতে বাঙালি বিজ্ঞানী চন্দ্রাবলী দত্ত

লন্ডনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ক’রোনা-ভ্যা’কসিন তৈরিতে বাঙালি বিজ্ঞানী চন্দ্রাবলী দত্ত

একজন বাঙালি হিসেবে গর্বের ব্যাপার যে সারা বিশ্বের এত দেশের মধ্যে একজন বাঙালি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাকসিন তৈরির দায়িত্বে রয়েছেন ।

বিভিন্ন দেশ এই ভ্যাকসিন প্রস্তুতিতে ব্যস্ত রয়েছে কিন্তু বাকি দেশগুলোর থেকে বেশ কিছুটা এগিয়ে রয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় । যেখানে দায়িত্বে রয়েছেন এক বাঙালি বিজ্ঞানী । গত জানুয়ারি মাসে তিনি সেখানে জয়েন করেন ।

করোনার বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম ভ্যাকসিন এখান থেকেই তৈরি হয়েছে, যোগদান করেছেন কলকাতা এই বাঙালি বিজ্ঞানী। এই সংস্থা সবার থেকে এগিয়ে থাকার কারণ তাদের তৈরি ভ্যাকসিন পৌঁছে গেছে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ধাপে , যেটা অন্য কোথাও হয়নি ।

এখন এই পরীক্ষার ফলের অপেক্ষা করছে বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ এবং অপেক্ষায় দিন পার করছেন অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা । ভ্যাকসিন গবেষক দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ভারতীয় বংশোদ্ভূত বাঙালি বিজ্ঞানী চন্দ্রাবলি দত্ত।

আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা এই ভ্যাকসিন এর গবেষক দলের সঙ্গে কাজ করতে শুরু করেন জানুয়ারি মাস থেকেই তিনি বলেন এখানে কাজ করতে পারাটা অনেক গর্বের কারণ এতে জড়িয়ে আছে পুরো মানবজাতির স্বার্থ।

অক্সফোর্ডের তৈরি করা এই ভ্যাকসিন রয়েছে পুরো বিশ্বের আগ্রহের কেন্দ্রে কারণ আগামী দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার ফল পেয়ে যাবে এই সংস্থা ।

এই বাঙালি বিজ্ঞানী চন্দ্রাবলী জানিয়েছেন মানবদেহের পরীক্ষায় যাওয়ার আগে ভ্যাকসিনের সব স্তরের মান নিশ্চিত করাই তাঁর কাজ এবং তিনি বলেন আমি আশা করছি এই ভ্যাকসিনে আমরা সফল হবোই।

তিনি জানিয়েছেন আমরা অতিরিক্ত সময় ধরে কাজ করছি যাতে মানুষের জীবন বাঁচানো যায়। ছোটবেলা থেকে প্রাণিবিদ্যা এবং গণিতে আগ্রহ ছিল তার এবং পরবর্তীতে বায়োটেকনোলজি বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি ।

তিনি ইউনিভার্সিটি অফ লিডস এ তিনি বায়োটেকে মাস্টার্স করছেন। তিনি বলেন আমরা আমাদের জীবনে কখনো এ ধরনের মহামারী দেখিনি, শুধু ইতিহাসেই পড়েছি কিন্তু একুশ শতকে এসে এধরনের মহামারী দেখতে হবে তা আমরা কল্পনাও করতে পারিনি।

আমাদের এখন প্রধান উদ্দেশ্য হলো মানুষের জীবন বাঁচানো । সারা বিশ্বের এত বিজ্ঞানী থাকা সত্বেও ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছেন এক বাঙালি বিজ্ঞানী এটি বাঙ্গালীদের জন্য একটি গর্বের বিষয় ।

Check Also

বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীকে কিডনি উপহার দিলেন স্ত্রী

একেই বলে হয়তো ভালোবাসার উপহার ৷ ফুলের তোড়া নয়, নয় ক্যান্ডেল লাইটল ডিনার ৷ দামি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *