Breaking News
Home / NEWS / মাঝরাতে এ্যাকুয়ার ইট থেকে খসবে ৪০ টি তারা, দেখা যাবে খালি চোখে

মাঝরাতে এ্যাকুয়ার ইট থেকে খসবে ৪০ টি তারা, দেখা যাবে খালি চোখে

কোনও টেলিস্কোপের প্রয়োজন নেই, লাগবে না কোনও দূরবীনও, এমনকি এর জন্য কোনও যন্ত্রের সাহায্যে আকাশের কোনও কোণকে জুম করে দেখতেও হবে না। আসল কথা প্রয়োজন নেই কোনও যন্ত্রের।

রাতের আকাশে খসে পড়বে একের পর এক তারা। আরো একবার সাক্ষী থাকবেন সেই দৃশ্যের। খালি চোখেই বাড়িতে বসে। সবচেয়ে ভালো হয়, যদি কোনও অন্ধকার জায়গায় গিয়ে এটি দেখেন। তবে করোনা আবহে বাইরে বেরোনোর প্রশ্নই নেই।

এই তারা খসা দক্ষিণ গোলার্ধে সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে তবে উত্তর গোলার্ধেও তা দৃশ্যমান হবে – ঠিক তেমন স্পষ্ট নয়। যখন এই দ্রিশ্য দেখতে বেরোবেন, তখন অন্য দিকে মাথা ঘোরাবেন না, তাহলে হয়তো এ দৃশ্য আপনি মিস করে যাবেন।

আসলে হ্যালির ধূমকেতুর কিছু অংশ থেকেই তৈরি হয়েছে এটা এ্যাকুয়ার ইট। আর সেখান থেকে খসে পরবে একের পরে এক উল্কা। প্রত্যেক বছরই এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি থেকে মে মাসের শেষের মধ্যে এই দৃশ্য দেখা যায়। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়।

ভাগ্য ভালো থাকলে এক ঘন্টায় ৪০ টি তারা খসা দেখতে পারেন আপনি। এই দৃশ্য সবচেয়ে ভালোভাবে কীভাবে দেখবেন? নাসা জানাচ্ছে, ছাদে একটা আরামকেদারা নিয়ে বসে থাকলেই হবে। শুধু আকাশ থেকে চোখ সরাবেন না।

উল্কাগুলির ধ্বংসাবশেষের টুকরো প্রতি ঘন্টা ১৪৮০০০ মাইল গতিবেগে বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করে এবং প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই বাষ্প হয়ে যায় । কিন্তু মাঝে একপ্রকার আলোর বিচ্ছুরণ দেখা যায়, যা আমাদের কাছে তারাখসা।

অস্ট্রেলিয়া থেকে এই তারাখসা সবচেয়ে ভালো দেখা যায়, কারণ তারা এটাকে ৫০ ডিগ্রি কোন থেকে দেখতে পায়, যা আদর্শ। এরপরবর্তী সময়ে পৃথিবী থেকে দেখতে পাওয়ার মতো উল্কাপাত খুব সম্ভবত অগস্টে হবে। ১০০ টিরও বেশি তারা ঘন্টায় খসে পড়তে পারে।

Check Also

SBI গ্রাহকদের জন্য দারুণ সুখবর, বাড়িতে গিয়ে টাকা দিয়ে আসবে ব্যাংক

এমনিতেই করোনা আতঙ্কে ভুগছে দেশ থেকে রাজ্যবাসী। বারবার চিকিৎসকরা বলছেন সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে গেলে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *