Breaking News
Home / NEWS / ‘এইভাবে কেন ফিরলে…’ ৩ মাসের বিবাহিত জীবনেই নিঃস্ব শহিদ মেজর অনুজ সুদের স্ত্রী

‘এইভাবে কেন ফিরলে…’ ৩ মাসের বিবাহিত জীবনেই নিঃস্ব শহিদ মেজর অনুজ সুদের স্ত্রী

প্রতিবেশীর কাছ থেকে জানা মাত্রই টিভির চ্যানেলটা খুলেছিলেন। সঙ্গে সঙ্গেই শরীর দিয়ে বয়ে গিয়েছিল হিমস্রোত। কেমন জানি মনটা কেঁপে উঠেছিল। তারপরই বেজে ওঠে বাড়ির ল্যান্ড ফোনটা। ধরা মাত্রই এক লহমায় গোটা পৃথিবীটা অন্ধকার হয়ে গিয়েছিল আকৃতি সুদের। সব হারালেন তিনি! জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আজ শহিদ আকৃতির স্বামী মেজর অনুজ সুদ।

অনুজ সুদ ১৯ গার্ড রেজিমেন্টের সদস্য ছিলেন। চলতি সপ্তাহেই জম্মু কাশ্মীর সীমান্তে হান্দওয়াড়াতে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শহিদ হন তিনি। এই খবরে মন ভেঙেছে আপামর ভারতীয়র। কিন্তু গত দুদিন ধরে নেটদুনিয়ায় যে ছবি ঘোরাফেরা করছে, তা দেখা মাত্রই চোয়াল শক্ত হয়ে আসছে অনেকের।

পরনে সাদা কুর্তা, এলোমেলো চুল, শুকিয়ে যাওয়া চোখের জল, ঝাপসা হয়ে আসা দৃষ্টি আর ম্লান মুখ- নির্বাকভাবে বছর পঁচিশের এক তরুণী তাকিয়ে রয়েছেন কফিনের দিকে! যেন বলতে চাইছেন… “এই ছিল আমাদের পরিণতি? এইভাবে কেন ফিরলে আমার কাছে?” না বলা চোখের ভাষা বুঝতে দেরি হয়নি কারোর! ইনি আকৃতি সুদ।।

মাত্র তিন মাস আগে ঘর বেঁধেছিলেন মেজর অনুজ সুদের সঙ্গে। আজ তাঁর কফিনবন্দি দেহের সামনে স্থির, গোটা বিশ্ব স্তব্ধ তাঁর কাছে। এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। চোখে জল এনেছে অনেকেরই। কিন্তু আকৃতির স্থির দৃষ্টি যেন অন্য কথা বলছে। “তুমি শহিদ, আমি গর্বিত তোমাকে পেয়ে…”

শোকপ্রকাশের পরিবর্তে গর্বিত অনুজ সুদের বাবা অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার চন্দ্রকান্ত সুদ। কিন্তু তাঁর মন কাঁদছে পুত্রবধূর জন্য। শুধু বললেন, “ছেলেকে হারিয়েছি, তবুও আমি গর্বিত। ও দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছে। কিন্তু আমার মেয়েটার মুখের দিকে তাকাই কীভাবে! ও যে সবে জীবনটা দেখতে শুরু করেছিল!”

Check Also

একেই বলে ভালোবাসা! স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়লো স্বামীর!!!

সং’যুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই শহরে বসবাসকারী ৩২ বছর ব’য়সী এক ভারতী’য় নাগরিক নিজের অ্যাপার্টমেন্টে লাগা ...

One comment

  1. With broken heart,I have no words to console akriti sood.
    But I am proud for the great hero who sacrificed everything for the motherland and also to save citizens of INDIA.
    May the Almighty bless this daughter and give strength to face this situation.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *