Breaking News
Home / NEWS / উহানের ল্যাব থেকেই কি ছড়িয়েছিল করোনাভাইরাস, এবার চিনের বিরুদ্ধে তোপ ব্রিটেনের!

উহানের ল্যাব থেকেই কি ছড়িয়েছিল করোনাভাইরাস, এবার চিনের বিরুদ্ধে তোপ ব্রিটেনের!

চিন থেকেই যে করোনা ভাইরাস যে ছড়িয়েছিল সে সম্পর্কে একপ্রকার নিশ্চিত সারা বিশ্ব। অনেকেরই বক্তব্য, চিনের উহানের ল্যাব থেকেই ছড়িয়েছিল এই মারণ ভাইরাস, যদিও এর কোনও প্রমাণ এখনও মেলেনি। তবে এই ধারণাকে খুব সম্ভবত বিশ্বাস করতে চলেছে ব্রিটেনও। এর আগে অবশ্য মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প বারেবারেই এব্যাপারে চিনকে দোষী ঠাউরিছেন, এবার সেই একই রাস্তায় ইংল্যান্ডও।

ব্রিটেনের মন্ত্রীরা মনে করছেন, উহানের ল্যাব থেকেই ছড়িয়ে পরেছে এই মারণ ভাইরাস। প্রথম দিকে বলা হচ্ছিল, উহানে পশুদের বাজার থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছিল মানবদেহে, কিন্তু একই সঙ্গে ল্যাব থেকে ছড়িয়ে পড়ার ধারণাটিকে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলকে একটি স্বাক্ষাৎকারে ব্রিটেনের কোবরা কমিশনের জানিয়েছেন, উহানের গবেষণাগারে এই মারণ ভাইরাস তৈরির সম্ভাবনাকে কোনও ভাবেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। উল্লেখ্য, চিনের উহান শহরেই রয়েছে চিনের অত্যাধুনিক গবেষণাগার। যা কিনা আবার উহানের পশু বাজার থেকে কয়েক মাইল দূরে।

সব মিলিয়ে মারণ ভাইরাস করোনা নিয়ে ফের একবার কিছুটা হলেও চাপে পরে গেল চিন। কারণ, এর আগে ইসরায়েলি ও মার্কিন বিজ্ঞানীরা চিনা ল্যাবকে দোষী বানালেও এবার ওই একই রাস্তা নিল ব্রিটেনও।

তবে ব্রিটেনের এই অভিযোগকে একেবারে নাকচ করে দিয়েছে ব্রিটেনের চিনা দূতাবাস। চিনা রাষ্ট্রদূত জেং রংয়ে এই ধরনের অভিযোগকে সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে জানিয়েছে, চিনে গবেষণাগারেই যদি এই ভাইরাসের জন্ম হত, তবে চিনে এত প্রাণহানি হত না। তিনি বলেন, চিন বিশ্বের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে সমস্ত দেশকে এই মহামারি মোকাবেলায় সাহায্য করছে।

করোনা নিয়ে বারেবারেই বিশ্বের তাবড় শক্তিধর দেশগুলির প্রশ্নের মুখে পড়েছে চিন। মার্কিন পেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্রমাগত অভিযোগের সুর চড়িয়েছেন চিনের বিরুদ্ধে। তাঁর দাবি, চিন যদি আগেভাগেই সতর্ক করত বা তথ্য গোপন না করত আজকে বিশ্বে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হত না।

এর আগে ইসরায়েলের দাবি ছিল, বিশ্বের সব দেশকে জব্দ করতে, চাপে রাখতে সবচেয়ে শক্তিশালী জীবাণু বানিয়েছে চিন। অভিযোজন ঘটিয়ে করোনাভাইরাসের মতো অনেক ভাইরাস তৈরি করছেন চীনের সামরিক বাহিনীর গবেষকরা।

উল্লেখ্য, বর্তমানে করোনার জেরে বিশ্বজুড়ে ৭০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৩ লাখের কাছাকাছি। মার্কিন মুলুকে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৩৭ হাজার, মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ৯ হাজার।

ইতালিতে আবার মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি সেখানে এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজারের বেশি মানুষের। আক্রান্ত ১ লক্ষ ২৮ হাজার জন। ব্রিটেনে মৃত্যু হয়েছে ৫,৩৭৩ জনের। আক্রান্ত ৪৭ হাজারের বেশি মানুষ।

Check Also

একেই বলে ভালোবাসা! স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়লো স্বামীর!!!

সং’যুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই শহরে বসবাসকারী ৩২ বছর ব’য়সী এক ভারতী’য় নাগরিক নিজের অ্যাপার্টমেন্টে লাগা ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *