Breaking News
Home / NEWS / ১ লা এপ্রিল থেকেই ৬০ বছর হলেই পেনশন মমতা সরকারের…

১ লা এপ্রিল থেকেই ৬০ বছর হলেই পেনশন মমতা সরকারের…

গত বাজেটে তফসিলি জাতি-উপজাতি মানুষদের জন্যে পেনশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মতো ৬০ বছর হলেই তফসিলি ব্যক্তিদের ১,০০০ টাকা বার্ধক্য ভাতা দেবে রাজ্য সরকার। এছাড়াও ৬০ বছর বা তার বেশি আদিবাসী ব্যক্তিদেরও পেনশন দেওয়া দেওয়ার কথা রয়েছে। আগামী মাস অর্থাৎ ১ এপ্রিল থেকেই এই প্রকল্প চালু হওয়ার কথা রয়েছে। আর সেই মতো যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয়েছে কাজ। ইতিমধ্যের ষাটোর্ধ্ব তফসিলি জাতি-উপজাতিদের এক হাজার টাকা করে পেনশন দিতে জেলাশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মূলত যাঁরা কোনও পেনশন পান না, তাঁরা মাসে এক হাজার টাকা করে ওই বার্ধক্যভাতা পাবেন বলে ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। গত ৩ মার্চ কালিয়াগঞ্জ থেকে ‘ওয়ান আমব্রেলা স্কিম—জয় বাংলা’ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে তিনি তফসিলি জাতিভুক্ত ষাটোর্ধ্বদের জন্য ‘তফসিলি বন্ধু’ এবং তফসিলি উপজাতিভুক্ত ষাটোর্ধ্বদের জন্য ‘জয় জহার’ নামে প্রকল্প ঘোষণা করেন। তিনি জানিয়ে দেন, এই প্রকল্পের মাধ্যমে এক হাজার টাকা করে বয়স্কদের সহযোগিতা করা হবে। যাঁরা বিভিন্ন প্রকল্পে ৬০০ থেকে ৭৫০ টাকা করে পেনশন পেতেন, তাঁরাও ১ এপ্রিল থেকে এক হাজার টাকা করে পেনশন পাবেন। মুখ্যমন্ত্রীর সেই ঘোষণা মতো ইতিমধ্যে নির্দেশিকা জারি করেছে অর্থ দফতর।

পেনশন দিতে ২২০০ কোটি টাকা খরচ ধরা হয়েছে। নির্বাচনের মুখে ১৮ লক্ষ তফসিলি জাতি ও চার লক্ষ তফসিলি উপজাতি সম্প্রদায়ভুক্ত ব্যক্তিকে এক হাজার টাকা করে পেনশন দেওয়া হবে। অত্যন্ত দ্রুততা ও স্বচ্ছতার সঙ্গে যাতে এই কাজ হয়, তার জন্য সব জেলাশাসকদের কাছে ইতিমধ্যে পৌঁছে গিয়েছে নির্দেশিকা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চান, নয়া এই দুই প্রকল্পের মাধ্যমে তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের সকলেই যাতে এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন।

বছর ঘুরলেই বিধানসভা নির্বাচন। গত লোকসভা নির্বাচনের তফসিলি জাতি-উপজাতি এলাকা এবং আদিবাসী এলাকায় ভালো ফল করে বিজেপি। বিশেষ করে পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া এবং জঙ্গলমহল সহ বিস্তির্ণ এলাকায় ভালো ফল করে বিজেপি। এই পরিস্থিতিতে কার্যত এই সমস্ত মানুষের জন্যে পেনশন ঘোষণা করে মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান।

Check Also

হাওড়া স্টে’শনে এই ভুল’টি করলে’ই এবার মোটা টাকার জরিমানা, পড়ুন বিস্তারিত

স্টেশনে কিংবা ট্রেনের বগির ভিতরে বিজ্ঞাপন দিয়েও কোনো কাজের কাজ হচ্ছে না, জোরদার চলছে মাইকে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *