Breaking News
Home / NEWS / হঠাৎ হলুদ বৃষ্টি, বাংলায় তীব্র আতঙ্ক…

হঠাৎ হলুদ বৃষ্টি, বাংলায় তীব্র আতঙ্ক…

আকাশ থেকে ঝরে পড়ছে গাঢ় হলুদ রঙের বৃষ্টি। মুরারই থানার রাজগ্রামের সন্তোষপুর এলাকায় হঠাত করে হলুদ রঙের এই বৃষ্টি হয়। শুক্রবার এই বৃষ্টি হয়। হঠাত করে এই বৃষ্টি নিয়ে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়ে যায়। কয়েক সেকেন্ডের বৃষ্টির জেরে গাছের পাতা, বাড়ির উঠান, ছাদে হলুদ রঙের ছোপও পড়ে যায়। যা নিয়ে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

স্থানীয় মানুষজন জানাচ্ছেন, শুক্রবার সকাল থেকেই এলাকার আবহাওয়া বেশ কুয়াশাচ্ছন্ন ছিল। তবে বৃষ্টি হয়নি। বেলা বাড়তেই কিছুটা পরিস্থিতি বদলে যায়। আচমকা বৃষ্টি শুরু হয়ে যায়। আর তা সাধারণ নয়, স্থানীয় মানুষজন জানান, যেখানে জলের ফোঁটা পড়ছে, সেখানে হলুদ ছোপ পড়ে যাচ্ছে। হঠাত এমন ভাবে আকাশ থেকে হলুদ রঙের বৃষ্টি পড়তে দেখে তীব্র হৈচৈ বেঁধে যায়।

এলাকার মানুষজন জানাচ্ছেন, শিল্পাঞ্চল হওয়ায় আমাদের গ্রামে পাথরের গুঁড়ো উড়ে এসে পড়ে জানি। তাতে গাছের পাতা, বাড়ির ছাদে পাথরের গুঁড়োর আস্তরণ পড়ে যায়। কিন্তু, আগে কোনও দিন এরকম হলুদ রঙের বৃষ্টি হতে দেখা যায়নি বলেই জানাচ্ছেন স্থানীয় মানুষজন। আর তাতেই এলাকায় ভয়ের পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে।

অনেকেই আতঙ্কে বাড়ির বাইরে আসছেন না বলেও জানা যাচ্ছে। যদিও এর মধ্যে তেমন কোনও ভয়ের কারণ নিয়েই বলেই জানাচ্ছেন গবেষকরা। গবেষকরা জানাচ্ছেন, গোটা এলাকা পাথুরে। অবশ্যই শিল্পাঞ্চলও বটে। আর তা হওয়ার কারণে ওই এলাকায় বাতাসে ব্যাপক দূষণ। তার জেরেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে মনে করছেন গবেষকরা। প্রাথমিকভাবে অনুমান, এক্ষেত্রে অ্যাসিড মিশ্রিত থাকায় বৃষ্টির জলের রং হলুদ।

সাধারণত কলকারখানা থেকে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইড নির্গত হয়। বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে গেলে জলীয় বাষ্পের সঙ্গে বিক্রিয়ায় সালফিউরিক অ্যাসিড তৈরি হয়। যদিও নমুনার পরীক্ষার প্রয়োজন রয়েছে। বিজ্ঞান বিভাগের একাধিক শিক্ষকের মতে, জলের সঙ্গে ওই অ্যাসিড মিশে বৃষ্টির মাধ্যমে নেমে এলে তাকে অ্যাসিড বৃষ্টি বলা হয়। অ্যাসিড বৃষ্টিতে ফসল, গাছপালার ক্ষতি হয়। ওই বৃষ্টির জল মানুষের গায়ে লাগলে চামড়া পুড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকে।

Check Also

হাওড়া স্টে’শনে এই ভুল’টি করলে’ই এবার মোটা টাকার জরিমানা, পড়ুন বিস্তারিত

স্টেশনে কিংবা ট্রেনের বগির ভিতরে বিজ্ঞাপন দিয়েও কোনো কাজের কাজ হচ্ছে না, জোরদার চলছে মাইকে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *