Breaking News
Home / HEALTH / ঔষধ ছাড়াই হাই ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকবে এই সহজ ৫টি উপায় মেনে চললে জেনেনিন

ঔষধ ছাড়াই হাই ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকবে এই সহজ ৫টি উপায় মেনে চললে জেনেনিন

বর্তমানে অনেকেই ভুগছেন উচ্চরক্ত চাপের কারণে। এমনকি ১৬-১৭ বছর বয়সের মানুষের এই উচ্চ রক্ত চাপ ধরা পড়ছে।সাধারণত হৃদপিন্ড সংকোচনের সময় রক্তচাপ বৃদ্ধি পায়, আর প্রসারণের সময় চাপ কিছুটা কমে যায়।আবার পরবর্তী সময়ে সংকোচনের ফলে রক্ত চাপ বৃদ্ধি পায়।যদি কোনো কারণে রক্ত চাপ বেশি থাকে তখন তাকে হয় ব্লাড প্রেসার বলে ও স্বাভাবিকের চেয়ে রক্তচাপ কম থাকলে লো ব্লাড প্রেসার বলা হয়ে থাকে।অনেকে এই উচ্চ রক্তচাপ কমানোর জন্য ওষুধ খেয়ে থাকেন, তবে কোনো কাজ হয়।কিন্তু জীবনযাপনে কিছু কিছু ছোট ছোট বাদল এনে এই উচ্চরক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।সেই পদ্ধতি গুলি হলো:-

> প্রতিদিন সকালে আধ ঘন্টা হালাক থেকে ভারী শরীরচর্চা করুন, ঘাম ঝরিয়ে হাঁটুন, সাইকেলিং বা সাঁতার কাটলে এই উচ্চ রক্তচাপ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

> শরীরের বাড়তি ব্যাথা ঝেড়ে ফেলতে পারলেই এই হাইব্লাডপ্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

> বাজার থেকে শাক সবজি ফল যাই হোকনা কেন সেটি অবশ্যই পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার কিনবেন, আর কার্বোহাইড্রেট কমিয়ে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খান।

> খাবারের পাতে ক্যাচ লবন খাওয়া যাবে না, বাইরের খাবার খাবেন না।

> ধূমপান ও মদদ পান ছেড়ে দিন, এতে আপনার হার্ট সুরোখ্হিত থাকবে।

ধূমপানের করুন পরিণতি সিওপিডি সম্পর্কে জানুন!বিস্তারিত….\

সিওপিডি হলো একটি জটিল রোগ।যা ফুসফুসে হয়ে থাকে।
কি সিওপিডি?
এটি দীর্ঘমেয়াদে শ্বাসনালির প্রদাহজনিত সমস্যা। অ্যাজমাও প্রদাহজনিত সমস্যা। তবে পার্থক্য হলো অ্যাজমা রিভাসেবল। ভালো হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সিওপডি যদি একবার শুরু হয় ওষুধ দিয়ে রোগটা শুধু আমরা কমিয়ে দিতে পারি। রোগটিকে আরো খারাপ হওয়া থেকে রক্ষা করতে পারি। একমাত্র সিগারেট যদি বন্ধ করে, রোগটি যে খারাপ হয়ে যাচ্ছে সেটি বন্ধ হয়ে যাবে। যতটুকু ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গেছে, একে আর স্বাভাবিক অবস্থায় নেওয়া যাবে না।

ধূমপায়ীদের সিওপিডি বেশি হয়?
যারা খুব অল্প বয়সে শুরু করে, আর যারা অতিমাত্রায় খাবে। সময় ও সংখ্যা, যাদের বেশি হবে, তাদেরই সিওপিডি হওয়ার আশঙ্কা বেশি। সাধারণত বলা হয় সিওপিডি হতে ২০ প্যাক ইয়ার লাগে। দৈনিক যদি ২০টি করে সিগারেট খায়, এক বছরে এক প্যাক ইয়ার। ২০ বছর যদি খায়, তাহলে ২০ প্যাক ইয়ার। সিগারেট সাধারণত মানুষ ১৭/১৮ বা ১৯ বছর বয়সে শুরু করে। কেউ যদি এই সময়ে শুরু করে তাহলে দেখবেন যে সিওপিডি রোগটা আসলে হয়ে যাচ্ছে।

সিওপিডি তে কি ক্ষতিগ্রস্ত হয়
ব্রঙ্কাইটিস নামে একটি রোগ রয়েছে, এনমফাইসিমা নামে একটি রোগ রয়েছে। ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিসে শ্বাসনালিতে প্রদাহ হয়ে, কতগুলো পরিবর্তন হয়। আর এমনফাইসিমা যেটি সেখানে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কোষের মতো থাকে, যার কারণে অক্সিজেন ও কার্বন ডাই-অক্সাইড পরিবর্তিত হবে সেই যে মেমব্রেনটা রয়েছে, সেটি নষ্ট হয়ে যায়। এটি আর স্বাভাবিক হয়ে আসবে না। ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ফুসফুসটা একেবারে বড় হয়ে যায়। ফুসফুস তো একটি স্পঞ্জি জিনিস, শ্বাস নিচ্ছি ঠিক হয়ে যাচ্ছে। শ্বাস ছাড়ছি সংকুচিত হয়ে যাচ্ছে, কিন্তু এটি যখন আস্তে আস্তে জমে যায় একটি ট্রেপ হয়ে যায়। যখন ট্রেপ হয়ে যায়, তখন তো আর বাতাস বের হতে পারে না। তখন ধীরে ধীরে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। আমি বাতাসের মধ্যে বসে আছি, তবে সে বাতাস কাজে লাগাতে পারছি না।

শ্বাসযন্ত্রের জন্য ধূমপান কতখানি হুমকির কারণ হতে পারে?
যতগুলো রোগ শ্বাসযন্ত্রের জন্য হয়, সবচেয়ে ক্ষতিকর রোগ কিন্তু ধূমপানের জন্য হয়। ধূমপান যখন আমরা শুরু করি তখন সেটি মুখ দিয়ে যায়, শ্বাসনালিতে যায়, আমাদের ভোকাল কর্ডে যায়, আমাদের ট্রাকিয়াতে যায়, এরপর আমাদের ফুসফুসে যায়। প্রতিটি জায়গাতেই সে ক্ষতিকর প্রভাব রেখে যায়। যেমন : শ্বাসনালিতে ইরিটেশন হয়। ইরেটেট হওয়ার জন্য স্থানীয় রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। যদি আরো নিচে যায়, তাহলে সিওপিডি নামে একটি রোগ রয়েছে, এটি দীর্ঘমেয়াদে শ্বাসনালিজনিত সমস্যা- যারা ধূমপান বেশি করে তাদেরই এটি বেশি হয়। এ ছাড়া ফুসফুসে ক্যানসার হয়, শ্বাসনালির ক্যানসার, সেগুলো কিন্তু সিওপিডির জন্য হয়ে থাকে। যেই রোগগুলো রয়েছে তাদের লক্ষণও বেড়ে যায়।

Check Also

যন্ত্রণাদায়ক কুনি নখ, জেনে নিন পাঁচ প্রতিকার

কুনি নখ খুবই যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা। হাতে বা পায়ের নখে এই সমস্যা হলে বেশ কয়েক ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *