Breaking News
Home / NEWS / লটারিতে ৩০ লাখ টাকা পেয়েছে রিক্সাচালক, টিকিট বিক্রি ব্যাপক বাড়ছে

লটারিতে ৩০ লাখ টাকা পেয়েছে রিক্সাচালক, টিকিট বিক্রি ব্যাপক বাড়ছে

সারাদিন রিক্সা চালিয়ে পাওয়া হমাত্র ৭০ টাকার মধ্যে ৩০ টাকা দিয়ে লটারির টিকিট কেটেছিলেন একজন। আর তাতেই তিনি রাতারাতি হয়ে গেছেন লাখপতি। এখন তিনি ৩০ লাখ টাকার মালিক!‌

সে কারণে রিক্সাচালক গৌর দাস এখন ভারতের গুসকরা শহরের অতি পরিচিতি নাম। এখন তাকে লটারির টিকিটের ব্র্যান্ডও বলা যেতে পারে। কারণ, তার নাম ভাঙিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে লটারি টিকিটের কেনাবেচা।

পূর্ব বর্ধমান জুড়ে লটারি টিকিট বিক্রির দোকান ও স্টলগুলোতে টিকিট বিক্রি রাতারাতি বেড়ে গেছে বেশ কয়েকগুণ। এমনই দাবি করেছেন টিকিট বিক্রেতারা।

গৌর জানান, তিনি নাগাল্যান্ড সরকারের লটারির টিকিট কেটেছিলেন। তাতেই ৩০ লাখ টাকা জিতেছেন। আগের দিন রিক্সা চালিয়ে মাত্র ৭০ টাকা রোজগার করেছিলেন তিনি। কিন্তু টিকিট বিক্রেতা তার কাছে খুবই জোরজবরদস্তি করেছিলেন ৩০ টাকা দিয়ে টিকিট কেনার জন্য। তখন তিনি এক প্রকার বাধ্য হয়েই ৭০ টাকার মধ্যে থেকে ৩০ টাকা দিয়ে সেই টিকিট কিনেছিলেন।

বাকি ৪০ টাকা নিয়ে সংসার খরচের জন্য বাড়ি ফিরে যান। কিন্তু পরের দিন অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে। তিনি লটারি খেলার ফল মেলাতে গিয়ে তালিকায় প্রথম পুরস্কারে নিজের নম্বর দেখে প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারেননি। পরে দোকানদার তাকে আশ্বস্ত করায় তিনি সোজা বাড়ি ফিরে যান।

বাড়ির সবাইকে লটারিতে পুরস্কার জেতার কথা বলেন। তার পরিবারে রয়েছেন বিধবা মা, স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে। পূজার আগে তার আনন্দটাই পুরোপুরি বদলে গেছে ওই লটারি জেতায়।

তিনি বলেন, খুবই কষ্টের মধ্যে ছোট ঘরে বাস করছি। মা, স্ত্রী, ছেলেমেয়েদেরও খুব কষ্ট করে থাকতে হয়। এবার এই টাকা দিয়ে ঘরবাড়ি করব। ছেলেমেয়েদের ভালো করে পড়াশোনা করাব। চাষবাস করার জন্য কিছু জমি কেনার ইচ্ছে আছে।

Check Also

SBI গ্রাহকদের জন্য দারুণ সুখবর, বাড়িতে গিয়ে টাকা দিয়ে আসবে ব্যাংক

এমনিতেই করোনা আতঙ্কে ভুগছে দেশ থেকে রাজ্যবাসী। বারবার চিকিৎসকরা বলছেন সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে গেলে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *